আদিবাসীদের উন্নয়নে শিক্ষার বিকল্প নেই

গোদাগাড়ী প্রতিনিধি: বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা বলেছেন, আদিবাসীরা নানা কারণে সমাজে পিছিয়ে পড়েছে। আদিবাসীদের উন্নয়ন ঘটাতে হলে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। সুশিক্ষায় শিক্ষিত হলে আদিবাসীরাই নিজেদের অনেক সমস্যার সমাধান করতে পারবে।
গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে আদিবাসী শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সঙ্গে এক সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন। উপজেলার কাঁকনহাট সুন্দরপুর আদিবাসী স্কুল মাঠে আয়োজিত এই সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দিচ্ছিলেন তিনি।
আদিবাসী ও সংখ্যালঘু বিষয়ক সংসদীয় ককাসের আহŸায়ক ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, সমতলের আদিবাসীদের উন্নয়নে তিনি প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। বিশেষ করে আদিবাসীদের ভূমি সংক্রান্ত সমস্যার জন্য একটি ভূমি কমিশন যেন গঠন হয় তার জন্য তিনি বার বার দাবি জানিয়ে আসছেন।
রাজশাহী-২ (সদর) আসনের টানা তিনবারের এই সংসদ সদস্য বলেন, বরেন্দ্র অঞ্চলের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হচ্ছে সুন্দরপুর আদিবাসী প্রাথমিক বিদ্যালয়। এই প্রতিষ্ঠানে আদিবাসী ভাষায় পাঠদান করা হয়। সরকারের সব নিয়ম মেনে বিদ্যালয়টি পরিচালিত হলেও সরকারি হয়নি। এ বিদ্যালয়টি সরকারিকরণে প্রয়োজনীয় সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও আশ^স্ত করেন শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা।
সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন রাজশাহী জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রফিকুল ইসলাম পিয়ারুল, সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল হক তোতা, জাতীয় আদিবাসী পরিষদের সভাপতি রবীন্দ্রনাথ সরেন, জেলা সভাপতি বিমল চন্দ্র রাজোয়াড়, আদিবাসী নেতা গণেশ মার্ডি, মুক্তিযোদ্ধা সাইদুর রহমান, উপজেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি মনিরুল ইসলাম, ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা মনিরুল ইসলাম পান্না, ফিরোজ কবির মিন্টু প্রমুখ। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন লুচিয়ান্না সরেন।
সমাবেশ থেকে আগামী ২৯ ফেব্রæয়ারি ওয়ার্কার্স পার্টির রাজশাহী বিভাগীয় জনসভায় আদিবাসীদেরও যোগ দেয়ার আহŸান জানানো হয়।

শর্টলিংকঃ