আট বীর মুক্তিযোদ্ধার জমি ভুমিদস্যুদের দখলে

  • 12
    Shares

নিয়ামতপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নিয়ামতপুরে আট বীর মুক্তিযোদ্ধার জমি জোর পূর্বক দখলে নিয়ে ভোগদখল করছে ভূমিদস্যু সদস্যরা। জমির দখল পেতে প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন ছয় বয়োজেষ্ঠ্য বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ তার পরিবারের সদস্যরা।

এ নিয়ে গত ৮ নভেম্বর মুক্তিযোদ্ধাদের স্বাক্ষরিত একটি আবেদন সহকারি কমিশনার (ভূমি) বরাবর করলেও এখন পর্যন্ত কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি প্রশাসন, এমন অভিযোগ ভূক্তভোগী বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তার পরিবারের সদস্যদের।

অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, সরকারের আদেশক্রমে নিয়ামতপুর উপজেলার বিলসিংড়া মৌজার ১নং খতিয়ানের দাগ নং-৩৩৭ থেকে ৪.০০ একর জমি (প্রত্যেকে দেড় বিঘা করে) ভুমিহীন তালিকায় ২০০১ সালে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম, মৃত মিছির উদ্দীন, হাফিজুর রহমান, আব্দুল কাদের, মৃত আব্দুল করিম সোনার, ইয়াদ আলী মন্ডল, জালাল উদ্দীন ও যোগেন সরেন জমিগুলো পান।

কবুলিয়ত রেজিস্ট্রির পর ওই জমির খারিজ-খাজনাও পরিশোধ করেন তারা। কিন্তু এখন পর্যন্ত ওই জমি দখল ও ভোগ পাননি বীরমুক্তিযোদ্ধারা। জমির দখল নিতে ৮ নভেম্বর নিয়ামতপুর ভুমি অফিসে আট মুক্তিযোদ্ধা স্বাক্ষরিত একটি আবেদন জমা দেন তারা।

অভিযোগে আরও জানা যায়, ভাবিচা ইউনিয়নের ধর্মপুর গ্রামের মুসা সরদারের ছেলে মহসীন আলী, মাবুদ বক্স ও ইলাহী বক্স এবং বামইন গ্রামের মৃত সমির মাস্টারের ছেলে সাইদুর রহমান ওই জমি ১৫ বছর থেকে জোরপূর্বক ভোগদখল করে আসছেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম জানান, ভূমিহীন তালিকায় সরকার তাদের প্রত্যেককে দেড় বিঘা করে জমি দিলেও সে জমি এখনও দখলে পাননি তারা। ওই জমির দখল চাইলেই নানা রকম ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে দখলদাররা।

তাই আইনি সহায়তা চেয়ে জমির দখল নিতে এসিল্যান্ড অফিসে আবেদন করেছেন। কিন্তু দুঃখের বিষয় এখন পর্যন্ত জমি উদ্ধারের কোন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি সংশ্লিষ্ট অফিসের কেউ।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিলুফা সরকার জানান, এ নিয়ে একটি আবেদন পেয়েছেন তিনি। কাগজপত্র যাচাই বাছাই চলছে। কাগজ যাচাই শেষে শীঘ্রই প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ