‘অশোভন আচরণ করেছে, এখন বাসার সামনে দাঁড়িয়ে থাকে’

অনলাইন ডেস্ক: ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস। গতকাল (১৮ জুলাই) রাজধানীর ভাটারা থানায় বাদশা বুলবুল নামে এক ব্যবসায়ীর নামে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তিনি।

এজন্য বাদশা বুলবুল আজ (১৯ জুলাই) চেক প্রতারণার অভিযোগে অপু বিশ্বাসকে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন বলে দাবি করেছেন এই অভিনেত্রী। কিন্তু অপু বিশ্বাস হঠাৎ এই ব্যবসায়ীর নামে জিডি করলেন কেন? এসব বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছেন তিনি।

অপু বিশ্বাস বলেন, ‘নিজে কিছু করবো বলে বগুড়ায় আমাদের পরিবারিক কিছু সম্পত্তি বিক্রি করে বাদশা বুলবুলের সঙ্গে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে ব্যবসা শুরু করি। সরল মনে তার কাছে আমার চেকবই রেখেছিলাম। কারণ কখনো টাকা প্রয়োজন হলে ব্যাংক থেকে যেন তুলে নিতে পারেন। কিন্তু কিছুদিন না যেতেই তার আচরণ পরিবর্তন হতে থাকে। এমনকি ইশারা-ইঙ্গিতে অশালীন ও অশোভন আচরণ করেন। এরপর সিদ্ধান্ত নিই, তার সঙ্গে আর ব্যবসা করবো না এবং চেকবই বাসায় নিয়ে আসি। তখনো বুঝিনি চেকের দুটি পাতা সে রেখে দিয়েছেন। এদিকে আমি আমার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে ফেলি এবং চেকের দুটি পাতা না পাওয়ার কারণে থানায় জিডি করে রাখি।’

বাদশা বুলবুলের নামে জিডি করার বিষয়ে অপু বিশ্বাস বলেন—‘গতকাল (১৯ জুলাই) আমার বাসার সামনে কিছু লোক নিয়ে বাসার ছবি তুলতে থাকেন বাদশা বুলবুল। অনেকক্ষণ তারা বাসার নিচেই ছিলো। বিষয়টি দেখে আমার ভয় লাগে। তারপর তার (বাদশা বুলবুল) নামে থানায় জিডি করি।’

চেক প্রতারণার অভিযোগ পুরোপুরি ষড়যন্ত্র বলে দাবি করেছেন অপু বিশ্বাস। তিনি বলেন—‘অনেক আগে আমার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছি। আমার চেক বইয়ের মাঝখানের দুটি পাতা পাচ্ছিলাম না বলে গত বছর থানায় জিডি করেছি। এই চেক নিয়ে কীভাবে আইনি নোটিশ পাঠায়? আমার সম্মান নষ্ট করার জন্য এমনটা করা হয়েছে। বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখছি। আমি তার বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করবো।’

সোনালী/আরআর

শর্টলিংকঃ