অনুমোদনের জন্য কেন্দ্রে রাজশাহী জেলা আ’লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়েছে গেল বছরের ৮ ডিসেম্বর। সম্মেলনে ঘোষিত আংশিক কমিটিকে পূর্ণাঙ্গ কমিটি করতে বেধে দেয়া হয় এক মাস সময়। কিন্তু তিন মাসেও কমিটি করতে ব্যর্থ হয় আংশিক কমিটি। গত ১ মার্চ নগর আওয়ামী লীগের সম্মেলনে এসে কেন্দ্রীয় নেতারা এ নিয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়ে বলেছিলেন, ১৫ দিনের মধ্যে জেলার পূর্ণাঙ্গ কমিটি না হলে ভেঙে দেয়া হবে আংশিক কমিটি।
অবশেষে ৭১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি করতে কেন্দ্রে নামের তালিকা দিয়েছে আংশিক কমিটি। বেধে দেয়া সময়ের তিনদিন আগে গত বৃহস্পতিবার দলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের কাছে পূর্ণাঙ্গ কমিটি জমা দেন জেলার সভাপতি মেরাজ উদ্দিন মোল্লা ও সাধারণ সম্পাদক কাজী আবদুল ওয়াদুদ দারা।
জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ চার সদস্যের নাম ঘোষণা করা হয়েছিল। অন্য দুই যুগ্ম সম্পাদক হলেন, বাঘা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান লায়েব উদ্দিন লাভলু এবং রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনের এমপি আয়েন উদ্দিন। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি।
তবে যাত্রার শুরুতেই সভাপতি-সম্পাদকের মধ্যে দেখা দেয় বিভেদ। আর এর জেরেই আটকে যায় পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন। কেন্দ্রীয় নেতাদের হুঁশিয়ারির পর সভাপতি মেরাজ উদ্দিন মোল্লা সাংবাদিকদের বলেছিলেন, স্থানীয় এমপিরা হাইব্রিড নেতাদের কমিটিতে জায়গা দিতে চাপ দিচ্ছেন। কিন্তু তিনি ত্যাগী নেতাদের কমিটিতে রাখতে চান। সে জন্যই কমিটি করতে দেরি হচ্ছে। পরে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক আলাদা আলাদাভাবে কেন্দ্রে পূর্ণাঙ্গ কমিটি জমা দিতে যান। কিন্তু তা গ্রহণ করা হয়নি।
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন জানান, প্রথমে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক আলাদা আলাদাভাবে কমিটির তালিকা জমা দিতে এসেছিলেন। তাদের এক হয়ে তালিকা দিতে বলা হয়। এরপর বৃহস্পতিবার তারা একসঙ্গেই দলের সাধারণ সম্পাদকের কাছে তালিকা দিয়েছেন।
জেলা আওয়ামী লীগের একাধিক নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বর্তমান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে মতের খুব একটা মিল নেই। আবার আগের কমিটির সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদকে সম্মেলনে বাদ দেয়ার পর তার অনুসারি হিসেবে পরিচিত জেলা আওয়ামী লীগের বেশির ভাগ নেতাই বর্তমান কমিটিকে মেনে নিতে পারেননি। বর্তমান সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকও বিষয়টি জানেন। তাই পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে আগের কমিটির অনেক নেতা বাদ পড়ছেন বলেই ধারণা করছেন তারা।
জানতে চাইলে সাধারণ সম্পাদক আবদুল ওয়াদুদ দারা বলেন, বৃহস্পতিবার কেন্দ্রে ৭১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি জমা দেয়া হয়েছে। তবে কারা এই কমিটিতে স্থান পেয়েছেন, তা জানাতে চাননি দারা। তিনি বলেন, সবার নাম কমিটি অনুমোদন হওয়ার পরই জানা যাবে। একটা খসড়া দেয়া হয়েছে, সেটা এদিক-সেদিকও হতে পারে।

শর্টলিংকঃ