অটোর ভাড়া যৌক্তিক ও সহনীয় হোক

  • 15
    Shares

নগরীতে অটোরিকশার ভাড়া বৃদ্ধির ব্যাপারে গত ১৮ ডিসেম্বর রাজশাহী ইজিবাইক মালিক শ্রমিক কল্যাণ সমবায় সমিতি সংবাদ সম্মেলন করে ১ জানুয়ারি থেকে ভাড়া বাড়ানোর ঘোষণা দেয়। নগরীর প্রতিটি রুটে আগের ভাড়ার সাথে তিন টাকা বৃদ্ধির ঘোষণা দেয়া হয়। তবে সর্বনিম্ন এক কিলোমিটারের মধ্যে পাঁচ টাকাই রাখা হয়। ঘোষণা অনুযায়ী বছরের প্রথম দিন থেকেই বর্ধিত ভাড়া আদায় শুরু হয়।

নগরীতে অটোর বর্ধিত এই ভাড়া নিয়ে যাত্রীদের মধ্যে দেখা দেয় বিরূপ প্রতিক্রিয়া। কোথাও কোথাও যাত্রীদের সাথে অটোচালকদের বচসাও দেখা দেয়। সচেতন মহলেও দেখা দেয় মিশ্র প্রতিক্রিয়া। এমন কি কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ- ক্যাব, রাজশাহীর পক্ষ থেকেও অটোরিকশার ভাড়া সহনীয় মাত্রায় রাখার আহ্বান জানানো হয়। অর্থাৎ নগরীতে অটোরিকশার ভাড়া একতরফাভাবে বাড়ানোর যৌক্তিকতা নিয়ে যেমন প্রশ্ন উঠে, তেমনি তা কতটা আাইনসিদ্ধ কিংবা আইন-বর্হিভূত তা নিয়েও প্রশ্ন তোলার যথেষ্ট অবকাশ রয়েছে।

এ অবস্থায় গত বৃহস্পতিবার বিকালে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের (রাসিক) অটোরিকশা নিয়ন্ত্রণ কমিটির সভায় মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন অটোরিকশার বর্ধিত ভাড়া স্থগিতের ঘোষণা দেন। নগর ভবনে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। রাসিক কর্তৃপক্ষ এ তথ্য জানিয়েছে। রাসিক কর্তৃপক্ষ আরও জানায়, সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামি ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত যাত্রীদের কাছ থেকে পূর্বের ভাড়া আদায় করতে হবে। ৩১ জানুয়ারির মধ্যে সকলের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে যৌক্তিক ভাড়া নির্ধারণ করবে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন।

নগরীতে অটোরিকশার ভাড়া বৃদ্ধি প্রসঙ্গে চালক-মালিকদের যে সব বক্তব্য তা খুবই যুক্তিসঙ্গত। সে কারণে অটোরিকশার ভাড়া বৃদ্ধিতে কারও আপত্তি থাকার কথা নয়। ইজিবাইক মালিক শ্রমিক কল্যাণ সমবায় সমিতি এককভাবে ভাড়া না বাড়িয়ে যথাযথ কর্তপক্ষের মাধ্যমে যৌক্তিকভাবে সহনীয় মাত্রায় বাড়ানো উচিত ছিল। তাই ভাড়া বৃদ্ধির ব্যাপারে ‘নগরপিতা’ হিসেবে সিটিমেয়র অটোরিকশার চালক-মালিক ও যাত্রীসাধারণের স্বার্থ সুরক্ষার যে দায়িত্ব নিয়েছেন, তা বাস্তবসম্মত। তার এই দায়িত্ববোধের জন্য তাকে সাধুবাদ জানাই।

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ