এফএনএস: সমাজকল্যান মন্ত্রী ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছেন, ডিজিটাল আইন নিয়ে সাংবাদিকদের মধ্যে কিছু আপত্তি রয়েছে। আমিও তাদের সাথে একমত। আমি চাইনা সংবাদপত্রের কন্ঠরোধ করা হোক।
তবে সাইবার ক্রাইম দিনে দিনে বেড়ে যাচ্ছে। এগুলো নিয়ন্ত্রন করা দরকার। তা না হলে শুধু রাজনীতি নয়, ব্যক্তি পর্যায়েও ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে। তারপরও ডিজিটাল আইন নিয়ে আমরা পুনরায় বিবেচনা করছি। বরিশাল সার্কিট হাউস মিলনায়তনে গত সোমবার দিবাগত রাতে স’ানীয় সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় মন্ত্রী আরও বলেন, সাংবাদিকদের জন্য কল্যাণ ট্রাস্ট হয়েছে। এটা বড় ধরনের অগ্রগতি। প্রবীন সাংবাদিকদের জন্যও কিছু করার বিষয় আমরা আলোচনা করছি। ১/১১ এর মত বিএনপি, জামায়াতি আর বামাতিরা আজ এক হয়ে আল্টিমেটাম দিয়েছে। তাদের লক্ষ্য নির্বাচন বানচাল করা। এক এগারোতে তারা দেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নেয়া হয়েছিলো। এখন আর বাংলাদেশের জনগনকে এত বোকা ভাবার কারণ নাই। জনগনই নির্ধারন করবে কে ক্ষমতায় যাবে। সংবিধানিক পদ্ধতিতেই নির্বাচন হবে, অন্য কিছুর সুযোগ নেই। আর কেউ যদি নির্বাচনে না আসে তবে আমাদের কিছু করার নেই। মতবিনিময় সভায় ওয়ার্কার্স পার্টির জেলা সভাপতি অধ্যাপক নজর্বল ইসলাম নিলু, বরিশাল-৩ আসনের সাংসদ অ্যাডভোকেট শেখ মোঃ টিপু সুলতান, শহীদ আবদুর রব সেনিয়াবাত বরিশাল প্রেসক্লাবের সভাপতি কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল, সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট এসএম ইকবাল, সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসেনসহ সংবাদকর্মীরা উপসি’ত ছিলেন।