স্পোর্টস ডেস্ক: দলীয় ৮৭ রানে পাঁচ উইকেট নেই বাংলাদেশের। এই অবস’া থেকে দলের সংগ্রহটা কত হবে? গত দুই ম্যাচের মতো এই ম্যাচেও অল্প রানে আঁটকে যাবে না তো টাইগাররা? না তেমন কিছু হলো না। মাহমুদউলৱাহ রিয়াদ ও ইমর্বল কায়েসের ১২৮ রানের জুটিতে দলের সংগ্রহটা যা হলো তা নেহাৎ কম নয়। এই রান নিয়ে লড়াইটা করা যাবে অন্তত। বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে ওয়ানডেতে ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে মাহমুদউলৱাহ রিয়াদ ও ইমর্বল কায়েসের আজকের জুটিই সর্বোচ্চ রানের জুটি।
গতকাল রোববার এশিয়া কাপে সুপার ফোরের ম্যাচে আফগানি-স্তানের বিপৰে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে সাত উইকেটে ২৪৯ রান সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ। মাহমুদউলৱাহ রিয়াদ ৭৪ রান করে আউট হন। ওয়ানডে ক্রিকেটে এটি তার ২০তম অর্ধশত। ইমর্বল কায়েস ৭২ রান করে অপরাজিত থাকেন। ওয়ান-ডেতে এটি তার ১৫তম অর্ধশত। অন্যদের মধ্যে লিটন দাস করেন ৪১ রান। ওয়ানডেতে এটি তার ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস। ৩৩ রান করেন মুশফিকুর রহিম। আফগানিস্তানের বোলারদের মধ্যে মুজিব উর রহমান ১টি, আফতাব আলম ৩টি ও রশীদ খান ১টি করে উইকেট শিকার করেন।
আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে বাংলাদেশ ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ১৬ রানে প্রথম উইকেট হারায়। ইনিংসের পঞ্চম ওভারে আফতাব আলমের বলে রহমত শাহর হাতে ক্যাচ হন নাজমুল হোসেন শান্ত। ১৮ বল খেলে ছয় রান করেন তিনি। এরপর ষষ্ঠ ওভারে মুজিব উর রহমানের বলে এলবিডবিৱউ হন মোহাম্মদ মিথুন। দুই বল খেলে এক রান করেন তিনি।
এরপর লিটন দাস ও মুশফিকুর রহিম দার্বণ খেলছিলেন। দুজনে মিলে ৬৩ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। কিন’ ১৯তম ওভারে আবারও ছন্দপতন ঘটে বাংলাদেশের। এই ওভারে সাজঘরে ফিরে যান লিটন দাস ও সাকিব আল হাসান। রশীদ খানের করা ইনিংসের ১৯তম ওভারের চতুর্থ বলে ইহসানুলৱাহর হাতে ক্যাচ হন লিটন দাস। তিনি করেন ৪১ রান। ওয়ানডে ক্রিকেটে লিটন দাসের এটি ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস। ওভারের শেষ বলে রান আউট হন সাকিব আল হাসান। দুই বল খেলে তিনি কোনো রান করতে পারেননি। ইনিংসের ২১তম ওভারে রান আউট হয়ে ফিরেছেন মুশফিকুর রহিম।
দলীয় ২১৫ রানে আফতাব আলমের বলে রশীদ খানের হাতে ধরা পড়েন মাহমুদউলৱা রিয়াদ। দলের রান যখন ২৩৬ তখন আফতাব আলমের বলে উইকেটরৰকের হাতে ক্যাচ হন মাশরাফি বিন মুর্তজা।
শ্রীলঙ্কার বিপৰে ১৩৭ রানে জয়ের মাধ্যমে এশিয়া কাপ শুর্ব করে বাংলাদেশ। এরপর আফগানিস্তানের বিপৰে বাংলাদেশ হেরে যায় ১৩৬ রানে। গত ২১ সেপ্টেম্বর টুর্নামেন্টের সুপার ফোর পর্বের প্রথম দিন ভারতের বিপৰে আট উইকেটে হেরে যায় বাংলাদেশ। আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর সুপার ফোর পর্বের শেষ দিন পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে টাইগাররা।
গতকালকের ম্যাচে একাদশে দুইটি পরিবর্তন এনেছে বাংলাদেশ। একাদশে ঢুকেছেন ইমর্বল কায়েস ও নাজমুল ইসলাম অপু। মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের পরিবর্তে ইমর্বল কায়েসকে একাদশে রাখা হয়েছে। অন্যদিকে, র্ববেল হোসেনের পরিবর্তে একাদশে রাখা হয়েছে নাজমুল ইসলাম অপুকে। এই ম্যাচের মাধ্যমে ওয়ানডে ক্রিকেটে অভিষেক হচ্ছে স্পিনার অপুর।
সংৰিপ্ত স্কোর
বাংলাদেশ ইনিংস: ৫০ ওভারে ২৪৯/৭ (মাহমুদউলৱাহ রিয়াদ ৭৪, ইমর্বল কায়েস ৭২*, লিটন দাস ৪১, মুশফিকুর রহিম ৩৩, আফতাব আলম ৩/৫৪।