বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক : তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, বাংলাদেশ শিৰার প্রসারের মাধ্যমে তর্বণ প্রজন্মের ওপর নির্ভর করে শ্রম-নির্ভরতা থেকে মেধানির্ভর জাতিতে পরিণত হওয়ার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। গতকাল রোববার সকালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) সিনেট ভবনে আয়োজিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, মাত্র নয় বছরের ব্যবধানে দেশে ইন্টারনেট ব্যবহার-কারীর সংখ্যা নয় লাখ থেকে নয় কোটিতে দাঁড়িয়েছে। এটা সারা বিশ্বের মধ্যেই বিরল। বর্তমানে ছয় লাখ দৰ তর্বণ-তর্বণী অনলাইনে কাজ করে মিলিয়ন ডলার আয় করছেন। আগামী ২০২১ সাল নাগাদ এ সংখ্যা ২০ লাখ হবে। আমরা শিৰার্থীদের জন্য পৱ্যাটফর্ম তৈরি করে দিচ্ছি। তাদের এটা কাজে লাগাতে হবে।
অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তৃতায় বিশ্ব-বিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম আব্দুস সোবহান বলেন, চীনে ফেসবুক, টুইটার, ইউটিউব বন্ধ। ১৯৮৪ সালের চীন আর বর্তমান চীনের মধ্যে অনেক পার্থক্য। ওই গণতন্ত্রের কী দরকার যেটা বিশৃঙ্খলা তৈরি করে? আমাদের সরকার কিছুই বন্ধ করবে না। কিন’ আপনারা তথ্যপ্রযুক্তির অপব্যবহার করবেন না। গুজব ছড়াবেন না।
উপাচার্য আরও বলেন, সাম্প্রতি যে অশুভ শক্তি জাতীয় ঐক্যের নামে জোট করছে, তাদের উদ্দেশ্য কেবল আওয়ামী লীগের বিরোধিতা করা। সরকার উৎখাত করা।
অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপসি’ত ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা, র্বয়েট উপাচার্য অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম শেখ, বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ওসমান গণি তালুকদার, ইমেরিটাস অধ্যাপক অর্বণ কুমার বসাক, বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কের প্রকল্প পরিচালক একেএম ফজলুল হক। এতে স্বাগত বক্তৃতা করেন রাবি আইসিটি সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক খাদেমুল ইসলাম মোল্‌্যা।
এর আগে প্রতিমন্ত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের চতুর্থ বিজ্ঞান ভবনে অগমেন্টেড রিয়্যালিটি, ভার্চুয়্যাল রিয়্যালিটি ও মিক্সড রিয়্যালিটি ল্যাব উদ্বোধন করেন। ল্যাবটি রাজশাহীর বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্ক প্রকল্পের আওতায় স’াপন করা হয়। এখানে বিশ্ববিদ্যা-লয়ের আগ্রহী শিৰার্থীদের এক বছর মেয়াদী প্রশিৰণ দেওয়া হবে।