আজমিরা পারভীন: রাজশাহী নগরীর বাজারগুলোতে গত সপ্তাহের তুলনায় চলতি সপ্তাহে সবজি ও মসলার দাম কিছুটা কমেছে। তবে চাল, ডাল ও অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম আগের মতোই রয়েছে। স্থিতিশীল রয়েছে মাংসের দামও।
নগরীর সাহেববাজারসহ বিভিন্ন বাজারে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আমদানি বৃদ্ধি পাওয়ায় গত সপ্তাহের চেয়ে সবজির দাম কমেছে। বিক্রেতারা জানিয়েছেন, গতকাল বাজারে প্রতিটি চালকুমড়া ২০ টাকা, শসা ৪০ টাকা , বরবটি ২৫ টাকা, কচুর লতি ৩০ টাকা, পটল ১২ টাকা, পেঁপে ১১ টাকা, আলু ২০ টাকা ও বেগুন ৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে।
তবে শীতের সবজি হিসেবে আগাম বাজারে আসায় শিমের দাম বেশি। প্রতিকেজি শিম এখন বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা দরে। শীতের সবজি ফুলকপির দামও ৮০ টাকা কেজি। ছোট আকারের একটি বাঁধাকপি বিক্রি হচ্ছে কমপৰে ৩০ টাকায়। এছাড়া ঢেঁড়স ২০ টাকা, কচু ২৫ টাকা ও মূলা ২৪ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।
মহানগর কাঁচামাল ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ফায়জুল ইসলাম জানান, আশ্বিন থেকে ফাল্গুন মাস পর্যন্ত সবজির আমদানি বেশি থাকার কারণে দাম কম। এর পাশাপাশি আমদানি স্বাভাবিক থাকায় এখন মসলার দামও কমেছে। এখন প্রতিকেজি পিয়াজের দাম ২২ টাকা, আদা ৮০ টাকা ও রসুন ৭০ টাকা। মরিচের দামও এখন বছরের অন্য সময়ের চেয়ে অনেক কম।
এদিকে নগরীর সাহেববাজারের মুদি ব্যবসায়ী বিনা প্রসাদ গুপ্ত জানান, চালের দামও এখন স্থিতিশীল রয়েছে। বর্তমানে জিরাশাইল চাল বিক্রয় হচ্ছে প্রতিকেজি ৫০ টাকা দরে। এছাড়া আটাশ চাল ৪৫ টাকা, মিনিকেট ৫৫ থেকে ৬০ টাকা, নাজিরশাইল ৬০ টাকা, বাসমতি ৭০ টাকা, গুটিশরনা ৪০ থেকে ৪২ টাকা, পারিজা ৪৫ টাকা, কালজিরা আতব ৮৫ টাকা, চিনিগুড়া আতব ৯০ টাকা, কাটারী আতব ৬০ টাকা, পাইজাম আতব ৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।
মাছ ব্যবসায়ী শফিকুল ইসলাম জানান, বর্তমানে প্রতিকেজি ছোট ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৮০০ থেকে ৯০০ টাকায়, বড় ইলিশ ১২০০ থেকে ১৫০০ টাকা, গলদা ৮০০ থেকে ১০০০ টাকা, টেংরা ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা, বিদেশি কৈ ১৬০ থেকে ১৮০ টাকা, গুচি মাছ ৭০০ থেকে ৮০০ টাকা, পিউলি ৬০০ থেকে ৭০০ টাকা, বাইম মাছ ৭০০ টাকা, পাবদা ৪৫০ থেকে ৫০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়াও পাঙ্গাস ৮০ থেকে ১২০ টাকা, দেশি মাগুর ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা, মৃগেল ১২০ থেকে ১৬০ টাকা, সিলভার কার্প (বড়) ২২০ থেকে ২৬০ টাকা, সিলভার কার্প (ছোট) ১২০ থেকে ১৫০ টাকা, কাতল ২৩০ থেকে ৩৫০ টাকা, র্বই মাছ ২২০ থেকে ৩০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।
বাজারে এখন অপরিবর্তিত রয়েছে মাংসের দর। বর্তমানে প্রতিকেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৪০ থেকে ১৪৫ টাকায়। এছাড়া সোনালী ২৪০ থেকে ২৫০ টাকা, লেয়ার ১৬০ থেকে ১৭০ টাকা, দেশি মুরগী ৩৯০ টাকা, পাতিহাস ২০০ থেকে ২৩০ টাকা। গর্বর মাংস ৪৫০ টাকা এবং খাশির মাংস ৭০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।