স্টাফ রিপোর্টার রাজশাহী জেলার সব শিৰা প্রতিষ্ঠানে স্থাপন হলো ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার। সেখানে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের লেখা বই ও প্রামাণ্যচিত্রগুলো স্থান পেয়েছে। এ ছাড়াও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লেখা বিভিন্ন লেখকের প্রবন্ধ, বক্তৃতা, বিবৃতি, বাণী, নির্দেশ, সাৰাৎকার এবং নানা ছবিও স্থান পেয়েছে।

সারাদেশের মধ্যে শুধু রাজশাহীতেই প্রতিটি শিৰা প্রতিষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু কর্নার স্থাপন করা হলো। জেলা প্রশাসনের গৃহিত এই উদ্যোগ বাস্তবায়িত হলো গতকাল শনিবার। স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসায় একযোগে উদ্বোধন হলো বঙ্গবন্ধু কর্নার। এটি স্থাপনের পরিকল্পনায় ছিলেন জেলা প্রশাসক এসএম আব্দুল কাদের। আর সার্বিক তত্ত্বাবধান করেছেন বিভাগীয় কমিশনার নূর-উর রহমান।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিৰা ও আইসিটি) নজর্বল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শৈশব, কৈশোর, রাজনৈতিক তথা সমগ্র জীবন সম্পর্কে বর্তমান প্রজন্মকে ধারণা দিতে রাজশাহী জেলা ও মহানগরের এক হাজার ৯৮০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়, স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও wek^we`¨vj‡q একযোগে বঙ্গবন্ধু কর্নার চালু করা হয়েছে। গতকাল সকালে রাজশাহী সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ে এর উদ্বোধন করেন সিটি মেয়র এএইচএম খায়র্বজ্জামান লিটন।

সংশিৱষ্টরা জানান, বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মের ওপর এ পর্যন্ত দেশ-বিদেশে ১৩ শতাধিক মৌলিক গ্রন্থ প্রকাশ পেয়েছে। পৃথিবীর আর কোনো দেশে একজন নেতার ওপর লেখা এতো বই প্রকাশ পায়নি বলে লেখক-প্রকাশকরা জানিয়েছেন। এ বইগুলো বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় প্রকাশিত। এ ছাড়াও বঙ্গবন্ধুর ওপর বেশ কিছুসংখ্যক বই চীনা, জাপানি, ইতালি, জার্মানি, সুইডিশসহ কয়েকটি বিদেশি ভাষায় প্রকাশিত হয়েছে। এসব বই সংগ্রহ করে সংগ্রহ করে বঙ্গবন্ধু কর্নারে রাখা হবে।

তাছাড়া থাকবে বঙ্গবন্ধুর দুর্লভ সব ছবি। অনেক বইয়ের সঙ্গে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের লেখা ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ বইটিও থাকছে বঙ্গবন্ধু কর্নারে। বইটিতে বঙ্গবন্ধুর শৈশব, শিৰা জীবনের সংগ্রাম, সামাজিক ও রাজনৈতিক কর্মকা-, ভাষা আন্দোলন, ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠা, যুক্তফ্রন্ট গঠন, নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে সরকার গঠন, পাকিস্তান কেন্দ্রীয় সরকারের বৈষম্যমূলক শাসন ও প্রাসাদ ষড়যন্ত্রের বিস্তারিত বিবরণ এবং এসব বিষয়ে প্রত্যৰ অভিজ্ঞতার বর্ণনা রয়েছে।

এ ছাড়াও বঙ্গবন্ধুর জেল জীবনের দৈনন্দিন বিবরণ বা ডায়েরির ওপর নির্ভর করে প্রকাশিত ‘কারাগারের রোজনামচা’ বইটিও গুর্বত্বের সঙ্গে স্থান পাচ্ছে বঙ্গবন্ধু কর্নারে। ‘এই দেশ এই মাটি’ নামে আরেকটি বই থাকছে বঙ্গবন্ধু কর্নারে। এ বইয়ে বঙ্গবন্ধুর লেখা পাঁচটি প্রবন্ধ, ৫২৭টি বক্তৃতা-বিবৃতি, ৩২টি বাণী, ১৭টি নির্দেশ, ৩টি সাৰাৎকার, বহু উপাধিতে ভূষিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে ১২টি বিষয়, ১৭টি ঐতিহাসিক দলিলপত্র এবং ২২১টি দুর্লভ ছবি রয়েছে। এসব বই পড়ে শিৰার্থীরা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সম্পর্কে সহজেই অনেক তথ্য জানতে পারবে।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, শিৰার্থীরা বঙ্গবন্ধু কর্নার থেকে একটি বই সাতদিনের জন্য বাসায় নিয়ে যেতে পারবে। পড়া শেষে সেই বই জমা দিয়ে আরেকটি বই নিতে পারবে। বঙ্গবন্ধুর বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবন নিয়ে শিৰার্থীদের কৌতুহল পূরণ করতেই এই উদ্যোগ নেয় জেলা প্রশাসন। ছবি আর বইয়ে সমৃদ্ধ ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’ শিৰার্থীদের সেই কৌতুহল পূরণ করতে সৰম বলেই মনে করছেন জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা। তারা আশা করছেন, রাজশাহী থেকেই এই উদ্যোগ ছড়িয়ে পড়বে সারাদেশে।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক এসএম আবদুল কাদের বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’ স্থাপন সম্পূর্ণ জেলা প্রশাসনের উদ্যোগ। এটি বাস্তবায়িত হওয়ায় খুবই ভাল লাগছে। এই কৃতিত্ব রাজশাহীর মানুষের। তারা সহযোগিতা না করলে এতো দ্র্বত এটি সম্ভব হতো না।  প্রধানমন্ত্রীকে আমি এ কথা বলবোই।