স্টাফ রিপোর্টার: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে একবার আলিঙ্গনের সুযোগ হয়েছিল রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়র্বজ্জামান লিটনের। সেই স্মৃতি উলেৱখ করে লিটন বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে আলিঙ্গন তার জীবনের শ্রেষ্ঠ অর্জন।

গতকাল শনিবার সকালে রাজশাহী নগরীর হেলেনাবাদ সরকারি উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে ‘বঙ্গবন্ধু কর্ণার’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। মেয়র বলেন, জীবনে একবার ১৯৭৪ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আলিঙ্গন পেয়েছি। এটি জীবনের শ্রেষ্ঠ অর্জন।

লিটন বলেন, বাবা তখন মন্ত্রী ছিলেন। বঙ্গবন্ধু নিজেই বাবার সরকারি বাসভবনে এসেছিলেন। বঙ্গবন্ধুকে দেখে আমরা দুই ভাই দাঁড়িয়ে যাই। বঙ্গবন্ধু আমাদের বলেন, ‘তোরা এদিকে আয়’। আমরা দুই ভাই ভয়ে ভয়ে তার কাছে যায়। তিনি তার বিশাল বুকের মধ্যে আমাদের দুই ভাইকে জড়িয়ে নেন।

জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহিদ এএইচএম কামার্বজ্জামানের সন্তান লিটন বলেন, আজ (গতকাল) রাজশাহীর সব শিৰাপ্রতিষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু কর্ণার উদ্বোধন করা হলো। এটি ইতিহাসের একটি অংশ হয়ে থাকলো। এখান থেকে শিৰার্থীরা বঙ্গবন্ধু সর্ম্পকে অনেক কিছু জানতে পারবে।

অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ সর্ম্পকে শিৰার্থীদের কয়েকটি প্রশ্ন করেন নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি লিটন। সঠিক উত্তরাদাতা সাত শিৰার্থীকে তাৎৰণিক অর্থ পুরস্কার প্রদান করেন তিনি। কুইজে বিজয়ী শিৰার্থীরা হলেন, নবম শ্রেণির ছাত্রী এমজেড মম, সাদিয়া হক, আতিয়া সুলতানা, সিরাজুন মুনিরা, সপ্তম শ্রেণির নূরে আফসানা প্রিয়, আনিকা মুস্তারিন মৌমিতা ও ষষ্ঠ শে্রিণর ঈশিতা চৌধুরী।

জেলা প্রশাসক এসএম আব্দুল কাদেরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার আমিনুল ইসলাম। বক্তব্য দেন মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাকিম, আব্দুস সামাদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক নজর্বল ইসলাম, রাজশাহী মাধ্যমিক শিৰা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক তৌহিদ আরা প্রমুখ। এরআগে ফিতা কেটে বঙ্গবন্ধু কর্ণার উদ্বোধন করেন মেয়র লিটন।