স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহী জেলার কয়েকটি বালুমহালের আহ্বানকৃত দরপত্র দরপত্রদাতাসহ উপসি’ত ব্যক্তিবর্গের সামনে খোলা হয়েছে।
গতকাল বৃহস্পতবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে দাখিল করা দরপত্র খোলা হয়। জেলা প্রশাসনের পৰ থেকে জেলার গোদাগাড়ি, বাঘা ও চারঘাটের ৫টি বালু মহালের দরপত্র আহবান করা হয়। জেলার গোদাগাড়ি বালুমহালের জন্য ৩টি দরপত্র, বাঘার দুইটি বালুমহালের জন্য ৬টি ও চারঘাটে দুইটি বালুমহালের জন্য ১১টি দরপত্র জমা পড়ে। গোদাগাড়িতে সবোর্চ্চ দরদাতা হলো মেসার্স আমিন ট্রেডার্স ৭৫ লাখ টাকা। ২য় দরদাতা ছিলেন মেরাজুল ইসলাম এন্টারপ্রাইজ ৪১ লাখ টাকা এবং সর্বনিম্ন দরদাতা হচ্ছে সিদ্দিকীয়া এন্টারপ্রাইজ ২২ লাখ টাকা। বাঘার একটি বালুমহালের সবোর্চ্চ দরদাতা মেরাজুল ইসলাম এন্টারপ্রাইজ। তার দর ছিল ৭১ লাখ ৭১ হাজার ১০১ টাকা। ২য় দরদাতা মেসার্স সরকার ইন্টারপ্রাইজ ৫১ লাখ ৯ টাকা। সর্বনিম্ন দরদাতা হচ্ছে রনি এন্টারপ্রাইজ ৩৩ লাখ টাকা। বাঘার অপর বালুমহালের সবোর্চ্চ দরদাতা মেরাজুল ইসলাম এন্টারপ্রাইজ ৩০ লাখ টাকা। ২য় দরদাতা আমিন ট্রেডার্স ১০ লাখ টাকা। সর্বনিম্ন দরদাতা হচ্ছে মেসার্স সরকার এন্টারপ্রাইজ ৮ লাখ টাকা। চারঘাট বালুমহালের সবোর্চ্চ দরদাতা মেসার্স হুসেন এন্টারপ্রাইজ। তার দর ছিল ২ কোটি ২০ লাখ। ২য় দরদাতা মেসার্স রনি এন্টারপ্রাইজ ১ কোটি ৬৩ লাখ টাকা। ৩য় দরদাতা মেসার্স আকছেদ ট্রেডার্স ১ কোটি ৫৯ লাখ টাকা, ৪র্থ দরদাতা সুমন ট্রেডার্স ১ কোটি ৩৯ লাখ ও সর্বনিম্ন দরদাতা ৩১ লাখ টাকা। এছাড়াও চারঘাটের ইউসুফপুর বালু মহালের হুসেন ট্রেডার্স ৭২ লাখ টাকা, ২য় দরদাতা মামুন ট্রেডার্স ৩৬ লাখ টাকা, ৩য় দরদাতা মেসার্স পুতুল ট্রেডার্স ৩০ লাখ ১ হাজার টাকা, ৪র্থ দরদাতা আকছেদ ট্রেডার্স ৩০ লাখ টাকা ও সর্বনিম্ন দরদাতা হচ্ছে মেসার্স মেরাজুল এন্টারপ্রাইজ ১৫ লাখ ৫ হাজার টাকা।
প্রয়োজনীয় কাগজপত্র বৈধ হলে সর্বোচ্চ দরদাতা বালু মহালের কার্যাদেশ পাবেন। ত্র্বটি থাকলে পরের সর্বোচ্চ দরদাতা বালু মহালের কার্যাদেশ পাবেন। দরপত্র খোলার সময় উপসি’ত ছিলেন জেলা প্রশাসক এসএম আব্দুল কাদের, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আলমগীর কবির, আরডিসি শরমিন আক্তার, এলজিইডি সহকারী প্রকৌশলী খুরশেদ উল আমিন, পাউবো সহকারী প্রকৌশলী আব্দুর রউফ মিয়া, সহকারী পুলিশ সুপার রায়হান ইবনে রহমানসহ দরপত্র প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলির প্রতিনিধি ও মিডিয়াকর্মীরা।