বগুড়া প্রতিনিধি: বগুড়ায় দূরপালৱার যাত্রীবাহী কোচে পেট্রোলবোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাটি ঘটে বুধবার দুপুরে শাহজানপুর উপজেলা এলাকার ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কের সাজাপুর এলাকায় টিএমএসএস ফিলিং স্টেশনের সামনে ।
ঠাকুরগাঁও থেকে ঢাকাগামী নাবিল পরিবহনের বাসে পেট্রোলবোমা হামলার ঘটনায় নূর মোহাম্মদ মুন্সি নামের এক যুবদল কর্মীকে পুলিশ আটক করেছে। আটক নূর মোহাম্মদ মুন্সি উপজেলার মাঝিড়া এলাকার নূরে আলমের ছেলে ও জেলা যুবদলের সহ-কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ।
আহতরা হলেন, নীলফামারী সদর উপজেলার মোজাম্মেল হকের স্ত্রী আঞ্জুয়ারা বেগম (৫০), নীলফামারী জলঢাকা উপজেলার শিমুলবাড়ি গ্রামের নজরুল ইসলামের স্ত্রী মনিরা বেগম (৪০) ও টাঙ্গাইল জেলার শান্তিনগরের শামীমা (২৭)। আহতরা বগুড়া শহিদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
সূত্রে জানা গেছে, বুধবার ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার রায় ঘোষণার পরপরই দুপুর ১টার দিকে কয়েকজন বিএনপি কর্মী ঢাকাগামী নাবিল পরিবহনের একটি কোচে পেট্রোলবোমা নিৰেপ করে। বাসযাত্রীরা জানান, উপজেলার ওই স’ানে কোচ পৌঁছালে প্রথমে ৮-৯ জন বাস লৰ করে প্রথমে লাঠি ছুঁড়ে মারে। পরে ২ জন সামনে এসে পেট্রোলবোমা নিৰেপ করে। নিৰিপ্ত পেট্রোলবোমাটি বাসের গৱাস ভেঙে ভেতরে যায়। এ সময় তিন জন নারী যাত্রী আহত হন।
এদিকে পেট্রোলবোমা নিৰেপ করে পালিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশ নূরমোহাম্মদকে আটক করে। শাহাজাহনপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি সার্বিক) জিয়া লতিফুল বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বোমা হামলা চালিয়ে দ্র্বত মোটরসাইকেল যোগে পালিয়ে যাবার চেষ্টা করলে পুলিশ তাকে ধাওয়া করে। এসময় অবস’া বেগতিক দেখে হামলাকারী তার মোটরসাইকেল ফেলে স’ানীয় একটি পুকুরে ঝাঁপ দেয়। পরে পুকুর থেকে নূরমোহাম্মাদকে আটক করা হয় ।