স্টাফ রিপোর্টার: সমাজকল্যাণ মন্ত্রী ও বাংলাদেশ ওয়ার্কাস পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন (এমপি) বলেন, দেশের উন্নয়ন এগিয়ে নিতে সংবিধানের মূলনীতি মেনে সমতার ভিত্তিতে সমাজ গড়তে হবে, না হলে সমাজ ভারসাম্যহীন হয়ে পড়বে। এ জন্য দূর্নীতি ও জঙ্গিবাদের বির্বদ্ধে লড়াই করতে হবে।
গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টায় নগরীর লক্ষ্মীপুর বাকির মোড় এলাকায় ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হসপিটালের নতুন ১০ তলা ফাউ-েশনের ৫ তলা ভবনের ভিত্তি প্রসত্তর স্থাপনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এ কথা বলেন। তিনি বলেন, রাজশাহীতে শিশু উন্নয়ন কেন্দ্র স্থাপন করা হবে। পূর্বের শিশু সংশোধনী কেন্দ্রের নাম পরিবর্ত্তন করে শিশু উন্নয়ন কেন্দ্র করা হয়েছে। এতে করে দরিদ্র অভিভাবকদের ভোগান্তি কমবে এবং শিশু-কিশোর অপরাধে পাবনায় শিশু সংশোধনি কেন্দ্রে আর পাঠাতে হবে না।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেক হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা সামাজিক নিরাপত্তার জন্য কাজ করে চলেছি। বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, বেদে ভাতা, হরিজন ভাতা সহ বিভিন্ন ভাতা বেড়েছে। এছাড়াও এ অঞ্চলের মানুষের জন্য বগুড়ায় বালক-বালিকা, অটিস্ট্রিক শিশু ও পরিচয়হীন শিশুদের জন্য একটি সেভহোম চালু করা হয়েছে। এ সময় তিনি সমাজের পিছিয়ে পরা মানুষের জন্য এগিয়ে আসার জন্য সকলকে আহ্বান জানান।
এদিকে অনুষ্ঠানের সভাপতি সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ ওয়ার্কাস পার্টির সাধারণ সম্পাদক জননেতা ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, ন্যাশনাল হার্ট ফাউ-েশনকে আন্তর্জাতিক মানের স্বংসম্পূর্ণ হাসপাতাল করা হবে। যাতে করে এ অঞ্চলের দরিদ্র মানুষ সেখানে উন্নত চিকিৎসা পান। এটি হলে উত্তরবঙ্গের মানুষকে আর ঢাকা বা ভারত যেতে হবে না। তিনি আরো বলেন, রাজশাহীর মানুষের সুবিধা বৃদ্ধির লৰ্যে ঢাকায় যাওয়ার জন্য পদ্মা সেতুতে আলাদা সেতু করতে ৬ হাজার কোটি টাকার অনুমোদন হয়েছে। অবিলম্বে উক্ত কাজ শুর্ব হবে। এছাড়াও রাজশাহী বিমান বন্দরকে আন্তর্জাতিক মানের বিমান বন্দর করার চেষ্টা চলছে এবং কার্গো ফ্লাইটের ব্যবস্থা করা হবে। যাতে করে এ অঞ্চলের মানুষ আমসহ বিভিন্ন কাঁচামাল সরাসরি বিদেশে পাঠাতে পারেন। তিনি বলেন, ৩০ লৰ শহীদের বিনিময়ে আজকের বাংলাদেশ। মানুষের ঘরে ঘরে সেবা পৌছে দিতে হবে।
রাজশাহী জেলা সমাজ সেবা কার্যালয় ও ন্যাশনাল হার্ট ফাউ-েশনের উদ্যোগে আয়োজিত উক্ত অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক, এস.এম. আব্দুল কাদের, বিভাগীয় সমাজসেবা কার্যালয়ের পরিচালক জুলফিকার হায়দার, ফাউ-েশনের সাধারণ সম্পাদক ডাঃ শাহাদাৎ হোসেন রওশন, সহ-সভাপতি ডাঃ আব্দুল মান্নান, যুগ্ম-সম্পাদক এনামুল হক, জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক রাশেদুল ইসলাম, বিশিষ্ট সমাজসেবী তাসলিমা খাতুন প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, এমপি ফজলে হোসেন বাদশার সার্বিক সহযোগীতায় ৪৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ১০০ শর্যা বিশিষ্ট ৫ম তলা হসপিটাল ভবনটি নির্মিত হচ্ছে। এখানে ৮ শর্যা বিশিষ্ট একটি আইসিইউ থাকবে। এছাড়াও ক্যাথল্যাব, অপারেশন থিয়েটার সহ বিভিন্ন উন্নত মানের যন্ত্রপাতি থাকবে। এরমধ্যে ২৮ কোটি ৭৯ লাখ টাকা সরকার দিবে এবং বাকি টাকা ফাউ-েশনকে জোগাড় করতে হবে। ১৯৮৪ সালে ন্যাশনাল হার্ট ফাউ-েশনের যাত্রা শুর্ব হয় একটি টিনের ঘর দিয়ে। ১৯৯২ সালে নগরীর লক্ষ্মীপুর বাকির মোড়ে ডাঃ খালেক হার্ট ফাউ-েশনের জন্য এক বিঘা জমি দান করেন। তিনি সিলেটের বাসিন্দা। বর্তমানে উক্ত জায়গায় ভবনটি নির্মিত হচ্ছে।