স্পোর্টস ডেস্ক: টি-টোয়েন্টি সিরিজে বড় হারের ৰত নিয়ে ওয়ানডেতে নেমেছিল বাংলাদেশের মেয়েরা। তবে ওয়ানডেতে দেখা গেল অন্য চেহারা। খাদিজা তুল কুবরার রেকর্ড গড়া বোলিং পাকিস্তানকে আটকে রাখল একশর নীচে। দার্বণ জয়ে বাংলাদেশ সিরিজ শেষ করতে পারল খানিকটা স্বস্তিতে।
একমাত্র ওয়ানডেতে পাকিস্তানকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা। এর আগে টি-টোয়েন্টি সিরিজে হোয়াইটওয়াশড হয়েছিল বাংলাদেশ।
কক্সবাজারে সোমবার পাকিস্তানি মেয়েদের ৯৪ রানেই বেঁধে ফেলে বাংলাদেশ। রান তাড়ায় জয় এসেছে ২১ ওভার বাকি থাকতেই।
৯.৫ ওভার বোলিং করে ২০ রানে ৬ উইকেট নিয়েছেন অফ স্পিনার কুবরা। ওয়ানডেতে বাংলাদেশের হয়ে সেরা বোলিংয়ের কীর্তি এটি। ৫ উইকেটও ছিল না আগে কারও। সেরা ছিল র্বমানা আহমেদের ২০ রানে ৪ উইকেট।
পাকিস্তানি মেয়েদের শুর্বটা এদিন খারাপ ছিল না। উদ্বোধনী জুটিতে আয়েশা জাফর ও মুনিবা আলি গড়েন ৩৮ রানের জুটি। ১৮ রান করা মুনিবাকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন লতা ম-ল। ১৮ রানেই আয়েশাকে ফিরিয়ে কুবরা ধরেন প্রথম শিকার।
তিনে নেমে অধিনায়ক জাভেরিয়া খান করেন দলের সর্বোচ্চ ২৯ রান। কিন’ দলের বাকি ৮ ব্যাটারের কেউ ৫ রানের বেশিই করতে পারেননি। দুই পাশ থেকে কুবরার অফ স্পিন ও র্বমানার লেগ স্পিনের কোনো জবাব পায়নি পাকিস্তান। শেষ ৭ উইকেট হারায় তারা ১৮ রানের মধ্যে।
কুবরার অসাধারণ বোলিংয়ের পাশা-পাশি দার্বণ করেছেন অধিনায়ক র্বমানাও। ৮ ওভারে মাত্র ১৫ রানে নিয়েছেন ২ উইকেট।
রান তাড়ায় বাংলাদেশের শুর্বটা শঙ্কা জাগিয়েছিল বাজে কিছুর। ইনিংসের প্রথম বলেই সানা মির আউট করেন আয়েশা রহমানকে। চতুর্থ ওভারে রান আউট হয়ে যান দেড় বছর পর দলে ফেরা ওপেনার শারমিন আক্তার। ৬ রানে নেই ২ উইকেট।
তবে তৃতীয় উইকেটে ফারজানা হক ও র্বমানার জুটি সব শঙ্কা উড়িয়ে দলকে নিয়ে যায় জয়ের কাছে। তৃতীয় উইকেটে ৮১ রানের দার্বণ জুটি গড়েন দুজন।
জয়ের সুবাস নিয়ে আউট হয়ে গেছেন অবশ্য দুই জনই। ৭০ বলে ৩৪ করেছেন অধিনায়ক র্বমানা। ষষ্ঠ ওয়ানডে ফিফটি থেকে ২ রান দূরে থমকে গেছেন ফারজানা। ৩ চারে ৪৮ করেছেন ৮১ বলে। খানিকপরই ধরা দিয়েছে জয়। ৩৬ ওয়ানডেতে বাংলাদেশের মেয়েদের এটি অষ্টম জয়। তিনটিই পাকিস্তানের বিপৰে।
সংৰিপ্ত স্কোর
পাকিস্তান: ৩৪.৫ ওভারে ৯৪ (জাভেরিয়া ২৯, আয়েশা ১৮, মুনিবা ১৮; কুবরা ৬/২০, র্বমানা ২/১৫)।
বাংলাদেশ: ২৯ ওভারে ৯৫/৪ (ফারজানা ৪৮, র্বমানা ৩৪, ২/২০)।
ফল: বাংলাদেশ ৬ উইকেটে জয়ী।