এফএনএস: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে ভর্তি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চিকিৎসা আজ রোববার দুপুর ১টার পর শুর্ব হবে বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুলৱাহ আল হার্বন। তিনি জানিয়েছেন, উচ্চ আদালতের আদেশ অনুসারে খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। এই মেডিকেল বোর্ড শনি ও রোববার (৬ ও ৭ অক্টোবর) পরীক্ষা-নিরীক্ষা করবে তার। এরপর রোববার দুপুর ১টায় মেডিকেল বোর্ড সভা করবে। সভার সিদ্ধান্ত অনুসারে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা শুর্ব হবে। খালেদা জিয়াকে পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে এনে গতকাল শনিবার বিকেলে বিএসএমএমইউ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করার পর সংবাদ সম্মেলন করে এ কথা বলেন ব্রি. জে. হার্বন। হাসপাতালের পরিচালক বলেন, হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুসারে তাকে কেবিন বৱকের ৬ তলায় ভিভিআইপি কেবিনে রাখা হয়েছে। সেখানে তাকে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি আমাদের সঙ্গে কথা বলেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের (অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া) সঙ্গেও কথা বলেছেন। এখন তিনি ভালো আছেন। মেডিকেল বোর্ডের ওপর তার (খালেদা জিয়া) অভিযোগ থাকলে সেখানে পরিবর্তন আসবে জানিয়ে ব্রি. জে হার্বন বলেন, তিনি হাসপাতালে আসার পর মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে কোনো চিকিৎসকের ওপর তার অভিযোগ থাকলে পরিবর্তন করা হবে। কেননা উচ্চ আদালত বিএনপি চেয়ারপারসনের পছন্দ অনুসারে মেডিকেল বোর্ড গঠন করার নির্দেশ দিয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে উলেৱখ করে তিনি বলেন, প্রশাসন ও কারা কর্তৃপক্ষের সহায়তায় আমরা হাসপাতালে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করেছি।
চিকিৎসায় নতুন বোর্ড
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় পাঁচ বছরের দ-প্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চিকিৎসা সেবায় গঠিত নতুন পাঁচ সদস্যের একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। গতকাল শনিবার বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুলৱাহ আল হার্বন। তিনি জানান, বিকেল ৩টা ৪১ মিনিটে খালেদাকে হাসপাতালে আনা হয়েছে। পরে হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুসারে আগের চিকিৎসা বোর্ড পরিবর্তন করে খালেদার জন্য ৫ সদস্যের নতুন চিকিৎসা বোর্ড প্রস্তুত করা হয়। আগের বোর্ডের বির্বদ্ধে রাজনৈতিক অভিযোগ থাকার কারণে নতুন বোর্ড গঠন করা হয়েছে। আর এই বোর্ডে যারা আছেন তারা দেশের সেরা চিকিৎসক। বিএসএমএমইউ’র মেডিসিন বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো আবদুল জলিল চৌধুরীর নেতৃত্বে এই ৫ সদস্যের বোর্ডে আরও রয়েছেন ফিজিক্যাল মেডিসিন সহযোগী অধ্যাপক ডা.বদর্বন্নেসা, ডা. সৈয়দ আতিকুল হক, ডা. সজল কৃ ব্যানার্জী, ডা. নকুল কুমার দত্ত।