স্টাফ রিপোর্টার: সারাদেশের ন্যায় রাজশাহী জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে রাজশাহী কলেজ মাঠে তিন দিনব্যাপি ৪র্থ জাতীয় উন্নয়ন মেলার গতকাল শনিবার ছিল সমাপনী দিন। শেষ দিনেও মেলায় ছিল মানুষের প্রচন্ড ভিড়।
গতকাল ছিল মেলার সমাপনী দিন। মেলায় জেলা প্রশাসনসহ রাজশাহীর বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ১৮২টি উন্নয়ন বিষয়ক স্টল শোভা পায়। শেষ দিনেও গতকাল ছুটির দিন থাকায় সকাল থেকে রাত অবধি মেলা প্রাঙ্গনে ছিল নানা বয়সি নারী-পুর্বষের উপচেপড়া ভিড়। প্রতিটি স্টলে গিয়ে মানুষজন আগ্রহ সহকারে তাদের উপস্থাপিত উন্নয়ন কার্যক্রম অবলোকন করেন এবং সেবা গ্রহন করেন। মেলায় তর্বনদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মত।
বর্তমান সরকারের অর্থনৈতিক. সামাজিক এবং এমডিজি অর্জন সংক্রান্ত উন্নয়নের গতিশীল ধারা সম্পর্কে প্রান্তিক জনগোষ্ঠী ও তর্বণ সমাজের কাছে এর বার্তা পৌঁছে দেয়ার লৰ্যে উন্নয়ন মেলার আয়োজন করা হয়েছে। মেলায় ২০২১ সালের মধ্যে ৰুধা ও দারিদ্রমুক্ত এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নয়নের রূপকল্প বা উন্নত বাংলাদেশের প্রস্তাবনা সম্পর্কেও জনগণ যে অবহিত হচ্ছে তা মেলায় লোকজনের উপস্থিতি দেখে বুঝা যায়।
মেলায় শিৰা প্রতিষ্ঠানের শিৰার্থীদের নিয়ে সরকারের সফলতা বিষয়ক রিয়েলিটি শো প্রদর্শন এবং মুক্তিযুদ্ধ ও সরকারের সফলতাকে উপজীব্য করে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। মেলায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা ছিল লৰ্যনীয়। যার করনে অনেক রাত অবধি নারীরা মেলা উপভোগ করেছে।
গতকাল সন্ধ্যার পরে সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিভাগীয় কমিশনার নূর-উর-রহমান। সভাপতিত্ব করেন রাজশাহীর জেলা প্রশাসক এস এম আব্দুল কাদের। অতিথি ছিলেন এডিশনাল কমিশনার জাকির হোসেন, কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপ পরিচালক দেব দুলাল ঢালী, সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী প্রমূখ। পরে শিশুদের বিভিন্ন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরন করা হয়। আগামীকাল ৮ অক্টোবর সেরা স্টলগুলোকে পুরস্কৃত করা হবে।
উলেৱখ্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত বৃহস্পতিবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারাদেশব্যাপি জেলা- উপজেলায় ৪র্থ জাতীয় উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করেন।