রাজশাহীর রেশমের হারানো ঐতিহ্য ফিরে আসবে

13/08/2018 1:04 am0 commentsViews: 11

এক সময় রেশমের নামেই রাজশাহী পরিচিত হতো। রেশমের সেই ঐতিহ্য রৰা না করায় তা ইতিহাসের বিষয় হয়ে উঠেছিল। তবে বিষয়টির ইতি ঘটতে চলেছে। রাজশাহীবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি বাস্তবায়নে সদর আসনের সংসদ সদস্যের উদ্যোগ আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে। রাজশাহী রেশম কারখানা চালুর অগ্রগতি দেখতে এসে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতির মুখ থেকে এমনই আশার কথা শোনা গেছে। রাজশাহীর রেশমকে গুর্বত্ব দিয়েই সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক এখানে অনুষ্ঠিত হওয়াকে যথেষ্ট ইতিবাচকই বলা যায়।
বর্তমানে পরীৰামূলকভাবে চালু হওয়া ৫টি পাওয়ার লুমের কার্যক্রম দেখে সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্যরা সন্তোষ প্রকাশের পাশাপাশি কারখানায় তৈরি রেশম কাপড় দেখে উচ্ছ্বসিত হয়েছেন বলেও জানা গেছে।
ঐতিহ্যবাহী রেশম শিল্পের সম্ভাবনা কাজে লাগাতে এর বিভিন্ন ধাপের মধ্যে সুষ্ঠু সমন্বয়, সুচিন্তিত পরিকল্পনা ও নিবিড় তদারকির প্রয়োজনীয়তা অস্বীকার করা যাবে না। রেশম বোর্ড এবং রেশম গবেষণা ও প্রশিৰণ ইনষ্টিটিউটের সমন্বিত কার্যক্রমও অপরিহার্য। সরকারের ভিশন-২০২১ বাস্তবায়নে রেশমের উৎপাদন ১০০ মেট্রিকটনে উন্নীত করা এবং পাট ও রেশমের সমন্বয়ে নতুন পণ্যের সম্ভাবনা নিয়ে গবেষণার ওপরও জোর দিয়েছেন সফরকারী দলের নেতা। সংসদীয় কমিটির সদস্যদের এই সফর রাজশাহীর রেশম শিল্পের নবজীবনলাভের গতি তরান্বিত করবে, নিঃসন্দেহে বলা যায়।
উলেৱখ্য, লাভজনক করার পরিকল্পনা এগিয়ে না নিয়ে লোকসানের অজুহাতে বিগত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে রেশম কারখানাটি বন্ধ করে দেয়া হয়। এ নিয়ে রাজশাহীবাসীর প্রতিবাদেও তারা কান দেবার প্রয়োজনবোধ করেনি। বর্তমান সরকারের আমলে রেশম বোর্ডের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি ও রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্যের আন্তরিক প্রচেষ্টায় আবারও রেশমের হারানো ঐতিহ্য ফিরে আসা এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র।
বর্তমান সরকারের উন্নয়নমূলক পদৰেপে রেশমের পুনর্জীবন রাজশাহীর রেশমকে আন্তর্জাতিক বাজারে নতুনভাবে তুলে ধরবে বলেই আমরা মনে করি। এ বিষয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্যের উগ্যোগ সফল করতে রাজশাহীবাসী সর্বাত্মকভাবে তারা পাশে দাঁড়াবে এতে সন্দেহ নেই।

Leave a Reply