সিংড়ায় স্বামীর নির্যাতনের শিকার এক গৃহবধূ

09/08/2018 1:04 am0 commentsViews: 23

সিংড়া (নাটোর) প্রতিনিধি: সিংড়ায় যৌতুক লোভী স্বামীর নির্যাতনের শিকার হয়ে উপজেলা স্বাস’্য কমপেস্নক্সের বিছানায় যন্ত্রণায় কাত-রাচ্ছে মমতাজ বেগম (২২) নামে এক গৃহবধূ। স্বামীর মধ্যযূগীয় নির্যাতনের শিকার হয়ে সোমবার রাত ৮টায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। বর্তমানে হাসপাতালের ৩৬ নম্বর বেডে রয়েছেন গৃহবধূ মমতাজ। এদিকে নির্যাতিত মমতাজ বেগমের পাশে দাঁড়িয়েছেন নাটোরের জেলা প্রশাসক শাহিনা খাতুন এবং সিংড়া থানার ওসি মনিরুল ইসলাম।
নির্যাতিতার পরিবার ও পুলিশ জানায়, সিংড়া উপজেলার প্রত্যনৱ ডাহিয়া ইউনিয়নের পূর্ব ভেঙরি গ্রামের সবুজ হোসেনের সাথে ৩ বছর আগে বিয়ে হয় মৌগ্রামের মকবুল প্রামানিকের মেয়ে মমতাজ বেগমের। তাদের সংসারে দেড় বছরের একটি সনৱান রয়েছে। বিয়ের সময় দেড় লাখ টাকা যৌতুক দেয় মমতাজের পরিবার। কিনৱু স্বামী সবুজ হোসেন আরো যৌতুকের টাকা দাবি করেন। এ নিয়ে মাঝে মধ্যেই তাদের সংসারে ঝগড়া বিবাদ হয়। সোমবার যৌতুকের টাকা নিয়ে শাশুড়ি শাফিয়া বেগমের সাথে ঝগড়া লাগলে বেধড়ক মারপিট করা হয় তাকে। পরে স’ানীয়রা উদ্ধার করে সিংড়া উপজেলা স্বাস’্য কমপেস্নক্সে ভর্তি করে। নির্যাতনের শিকার মমতাজ বেগম বলেন, স্বামী ও শাশুড়ি শাফিয়া বেগম মিলে মাঝে মধ্যে তাকে যৌতুকের টাকার জন্য মারপিট করে। সোমবার সন্ধ্যায় একই বিষয় নিয়ে ঝগড়া লাগলে স্বামী এবং শাশুড়ি তাকে বেধড়ক মারপিট করেছে। পরে বিকেল ৩টায় ওসির নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনা করে নিজ বাড়ি থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে সবুজ হোসেনকে।
এদিকে নির্যাতিত মমতাজ বেগমের পাশে দাঁড়িয়েছেন নাটোরের জেলা প্রশাসক শাহিনা খাতুন। গণমাধ্যম কর্মীদের কাছ থেকে খবর পাওয়ার তিনি সিংড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জরুরি ভিত্তিতে ব্যবস’া নেয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মনিরম্নল ইসলাম জানান, গণমাধ্যম কর্মীদের কাছ থেকে জানতে পেরে রাতে মমতাজের শিশু সনৱানকে তার কাছে ফিরিয়ে দিয়েছি এবং রাতেই অভিযান পরিচালনা করে মমতাজের স্বামী সবুজকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছি।

Leave a Reply