নারায়ণগঞ্জে সেপটিক ট্যাংক থেকে নিখোঁজ ব্যবসায়ীর খন্ডিত লাশ উদ্ধার

11/07/2018 1:03 am0 commentsViews: 1

এফএনএস: নারায়ণগঞ্জের কালির-বাজারের নিখোঁজ স্বর্ণ ব্যবসায়ী প্রবীর চন্দ্র ঘোষের বসৱাবন্দি খন্ডিত লাশ পাওয়া গেছে একটি সেপটিক ট্যাংকের ভেতরে। নিখোঁজের ২২ দিন পর গত সোমবার রাত সাড়ে ১১টায় নগরীর আমলাপাড়া এলাকায় রাশেদুল ইসলাম ঠান্ডুর বাড়ির সেপটিক ট্যাংকে খন্ডিত লাশটি উদ্ধার করা হয় বলে পুলিশ জানিয়েছে। এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। প্রবীরের (৭০) লাশ দেখে স্বজনেরা কান্নায় ভেঙে পড়ে খুনিদের শাসিৱ দাবি করেছেন। গ্রেফতারকৃতরা হলেন কালিরবাজারের পিন্টু শিল্পা-লয়ের মালিক পিন্টু সরকার (৩৫) ও তার দোকানের কারিগর বাপেন ভৌমিক (২৪)। পুলিশ বলছে, প্রবীর ঘোষের সঙ্গে পিন্টু সরকারের ব্যবসায়িক লেনদেন ছিল। এই লেনদেনের জের ধরে তাকে বাসায় ডেকে নিয়ে এসে হত্যা করা হয়েছে। নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিবি) নুরে আলম বলেন, পিন্টু সরকার ও বাপেনকে গত সোমবার সকালে আটক করা হয়। জিজ্ঞাসা-বাদে তারা হত্যাকা-ের কথা স্বীকার করে। পরে রাত সাড়ে ১১টার দিকে রাশেদুল ইসলাম ঠান্ডুর বাড়িতে সেপটিক ট্যাংকে তলস্নাশি চালিয়ে তিনটি বসৱায় ভরা প্রবীর ঘোষের ৫ টুকরো লাশ উদ্ধার করা হয়। ওই বাড়িতে পিন্টু ভাড়া থাকেন। গত ১৮ জুন সেখানেই প্রবীরকে হত্যা করা হয়েছিল বলে পুলিশ জানায়। গত ১৮ জুন নগরীর বঙ্গবন্ধু সড়কের কাদের হাজীর বাড়ির বাসা থেকে বের হওয়ার পর নিখোঁজ ছিলেন কালিরবাজারের ভোলানাথ জুয়ে-লার্সের মালিক প্রবীর। নিখোঁজের তিন দিন পর প্রবীর ঘোষের ছোট ভাই বিপস্নব চন্দ্র ঘোষের মোবাইল ফোনে এক কোটি টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়। প্রবীরকে উদ্ধারের দাবিতে নারায়ণগঞ্জের কালির-বাজারের স্বর্ণ ব্যবসায়ী মালিকরা বিৰোভ সমাবেশসহ নানা কর্মসূচি পালন করে আসছিলেন।

Leave a Reply