লিটনের পৰে ঝাঁপিয়ে পড়ুন

10/07/2018 1:09 am0 commentsViews: 89

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক) নির্বাচনে ১৪ দলের মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়র্বজ্জামান লিটনের পৰে নিজ দলের নেতাকর্মীদের ঝাঁপিয়ে পড়ার নির্দেশ দিয়েছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি। গতকাল সোমবার রাজশাহী মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির এক কর্মিসভায় তিনি এই নির্দেশ দেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে পার্টির নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বাদশা বলেন, দেশের সব সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ যে প্রার্থী দিবে, তাকে আমরা সমর্থন দেব। কারণ, আমরা চাই না, রাষ্ট্রের গুর্বত্বপূর্ণ দায়িত্বে বিএনপি-জামায়াত আসুক। তাই সেই সিদ্ধান্তকে বাস্তবায়নে আগামীকাল (আজ) থেকে আপনারা রাজশাহীর মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়র্বজ্জামান লিটনের পৰে ঝাঁপিয়ে পড়ুন।
নগরীর একটি কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত জনাকীর্ণ এ কর্মিসভায় বাদশা আরও বলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য বলে প্রচার-প্রচারণায় অংশ নিতে আমার প্রতি বাধা-নিষেধ আছে। কিন্তু পার্টির কর্মীদের কোনো বাধা নেই। তাই নৌকা প্রতীকের বিজয় নিশ্চিত করতে ওয়ার্কার্স পার্টির প্রতিটি কর্মী-সমর্থক মাঠে থাকুন। নৌকার জয় না দেখে কেউ ঘরে ফিরবেন না। মানুষের প্রতি এই যোগাযোগ সিটি করপোরেশন নির্বাচন থেকে শুর্ব করে আগামী সংসদ নির্বাচন পর্যন্ত অব্যাহত রাখতে হবে।
রাজশাহী-২ (সদর) আসনের এই সংসদ সদস্য বলেন, বিএনপি নেতা মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল সিটি মেয়র হয়ে ছাত্রশিবিরের মিছিলে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। জামায়াত-শিবির গ্রেনেড মেরে পুলিশকে হত্যা করেছিল। আমরা রাজশাহীর উন্নয়ন চাই। বোমার মিছিল চাই না। আমরা এমন একজন মেয়র চাই, যিনি বোমা মারবেন না। রাজশাহীতে উন্নয়ন দিবেন। তিনি নগরবাসীর সুখ-সুবিধার কথা বিবেচনা করবেন। আর এমন প্রার্থী শুধু ১৪ দলের খায়র্বজ্জামান লিটন।
সভায় মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি খায়র্বজ্জামান লিটনও বক্তব্য দেন। তিনি বলেন, নির্বাচনকে ঘিরে আবার শুর্ব হয়েছে অপপ্রচার। বলা হচ্ছে, আমি মেয়র হলে বস্তি ভাঙবো, নিউমার্কেট ভাঙবো, সাহেববাজার ভাঙবো। আমি বলতে চাই, আওয়ামী লীগ কখনো ভাঙার রাজনীতি করে না। আওয়ামী লীগ গড়ার রাজনীতি করে। আওয়ামী লীগের মতো অন্য কোনো দল সাধারণ মানুষের সঙ্গে মেশে না, তাদের কথা ভাবে না, মানুষের দুঃখ-দুর্দশা বোঝে না।
রাজশাহীর সাবেক এই মেয়র বলেন, মানুষ যদি এবার সুযোগ দেয় তাহলে আমি আর সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা একসঙ্গে কাজ করে রাজশাহীকে এগিয়ে নেব। রাজশাহীকে শুধু শিৰা নগরী নয়, শিল্প নগরী হিসেবেও গড়ে তুলবো। আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে সেখানে এক লাখ মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে। তাই সবার প্রতি অনুরোধ, অপপ্রচারে বিভ্রান্ত হবেন না। উন্নয়নের প্রতীক নৌকায় ভোট দিবেন।
বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির রাজশাহী মহানগরের সভাপতি লিয়াকত আলী লিকু সভায় সভাপতিত্ব করেন। সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামাণিক দেবুর পরিচালনায় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, পার্টির মহানগরের সম্পাদকম-লির সদস্য এন্তাজুল হক বাবু, সাদর্বল ইসলাম, আবু সাঈদ, আবদুর রাজ্জাক, আবুল কালাম আজাদ, ফেরদৌস জামিল টুটুল প্রমুখ।
এছাড়া ১৪ দলের নেতৃবৃন্দের মধ্যে জাসদের মহানগরের একাংশের সভাপতি প্রদীপ মৃধা, সাধারণ সম্পাদক আব্দুলৱাহ আল মাসুদ শিবলী, জাসদের অপরাংশের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শফিক প্রমুখ সভায় উপস্থিত ছিলেন।
কর্মিসভায় বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি ও এর সহযোগী সংগঠনগুলোর মহানগর এবং ওয়ার্ড কমিটির বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী অংশ নেন।

Leave a Reply