মহাকাশ যুগে প্রবেশ বাংলাদেশের

13/05/2018 1:04 am0 commentsViews: 17

অবশেষে মহাকাশ যুগে পা রাখলো বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার রাতে নির্ধারিত সময়ের শেষ মুহূর্তে স্যাটেলাইট উৎৰেপণ স’গিত হবার পর শুক্রবার একই সময়ে বঙ্গবন্ধু-১ মহাকাশ যান পৃথিবীর কৰপথে উৎৰিপ্ত হয় সফলভাবেই। শেষ হয় দীর্ঘ প্রতিৰার। বাংলাদেশ এখন বিশ্বের ৫৭তম স্যাটেলাইট অধিকারী দেশ হিসেবে বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তির সর্বোচ্চ শিখরে প্রবেশ করলো।
এর ফলে বৈশ্বিক টেলিযোগাযোগের ৰেত্রে পরনির্ভরতার অবসান ঘটবে, এমন আশা করাই যায়। কারণ মহাকাশভিত্তিক বিভিন্ন ধরনের যোগাযোগ ব্যবস’াপনায় বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট ব্যবহার করা যাবে। এর অতিরিক্ত সৰমতা বিক্রি করে বৈদেশিক মুদ্রার সাশ্রয় ও আয় করাও যাবে। ডিটিএইচ, ভিডিও ট্রান্সমিশন, ডি-স্যাট, প্রাইভেট নেটওয়ার্ক, পয়েন্ট টু পয়েন্ট কানেকশন প্রভৃতি সহজ হবে। প্রতিরৰা ও দুর্যোগ ব্যবস’াপনা যোগাযোগের ৰেত্রে প্রভূত উন্নতি হবে।
মোট ২ হাজার ৯৫৭ কোটি টাকার এই স্যাটেলাইট বাংলাদেশসহ সার্কভূক্ত দেশগুলো ছাড়াও ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, ফিলিপাইন, তুর্কিমিনেসৱান, কাজকিসৱান ও তাজিনিসৱানেও সেবা দিতে পারবে। তবে বিএস-১ এর ট্রান্সপন্ডার ভাড়া দিয়ে বাংলাদেশের লাভবান হওয়া অনেকাংশেই নির্ভর করছে ভারত ও চীনের স্যাটেলাইটের সঙ্গে পালস্না দেয়ার যোগ্যতার ওপর।
প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী ৪ হাজার ৬৩৫ টি স্যাটেলাইট রয়েছে পৃথিবীর কৰপথে। এর মধ্যে সোভিয়েত ইউনিয়নভূক্ত দেশগুলোর সম্মিলিত স্যাটেলাইটের সংখ্যা ১৫০৪টি, যুক্তরাষ্ট্রের-১৬১৬টি, চীনের-২৯৮, জাপানের-১৭২, ভারতের-৮৮, ফ্রান্সের-৬৮, ব্রিটেনের-৪২, দঃ কোরিয়ার-২৪, স্পেনের-২৩, তুরস্কের-১৪, সৌদি আরবের-১৩, পাকিসৱানের-৩টি। তবে এগুলোর মধ্যে অকেজো বা ধ্বসপ্রাপ্তই বেশি। সক্রিয় স্যাটেলাইটের মধ্যে ৭৮৮টি বাণিজ্যিকভাবে, ৪৬১টি সরকারি কাজে, ৩৬০ টি সামরিক প্রয়োজনে এবং ১২৯ টি বেসামরিক কাজে ব্যবহার হচ্ছে।
সর্বাধুনিক প্রযুক্তির এই স্যাটেলাইট মানুষের তৈরি এক জটিল যন্ত্র। ১৯৫৭ সালে সোভিয়েত ইউনিয়নের পাঠানো স্পুটনিক-১ পৃথিবীর সামনে খুলে দেয় বিস্ময়ের এই নতুন অধ্যায়। তারপর একে একে বিভিন্ন দেশ ও সংস’া এই সৰমতা অর্জন করেছে।
বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট উৎৰেপণের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশর ঘরে-বাইরে উচ্চতম মর্যাদায় উন্নীত হয়েছে এ গর্ব এখন দেশের সবাই করতে পারে। এর ফলে মহাকাশ প্রযুক্তি সম্পর্কে নতুন প্রজন্মের ব্যাপক আগ্রহ দেশের অগ্রগতিকে আরও বেগবান করবে, এটাই সবার কামনা।

Leave a Reply