রাহুলকে বহনকারী বিমানে ‘যান্ত্রিক ত্রম্নটি’, ষড়যন্ত্রের অভিযোগ

28/04/2018 1:04 am0 commentsViews: 16

এফএনএস আনর্ৱজাতিক : কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীকে বহন করা চাটার্ড উড়োজাহাজে ‘যান্ত্রিক ত্রম্নটি’ দেখা দেওয়ার পর ষড়যন্ত্রের অভিযোগ এনে ভারতের প্রধান বিরোধী দলের পক্ষ থেকে তদনেৱর দাবি করা হয়েছে। একটি জনসভায় যোগ দিতে গত বৃহস্পতিবার রাজধানী দিলিস্ন থেকে কর্নাটক যাচ্ছিলেন রাহুল। দলের আরও চার নেতা তার সঙ্গে ছিলেন। মাঝ আকাশে তাদের উড়োজাহাজে যান্ত্রিক ত্রম্নটি দেখা দেয়। আগামী মাসে কর্নাটকে বিধানসভা নির্বাচন।
তৃতীয় বারের চেষ্টায় পাইলট উড়োজাহাজটি কর্নাটকের হুবলি বিমানবন্দরে অবতরণ করতে সক্ষম হন বলে জানান কংগ্রেস নেতা কৌশল বিদ্যার্থী, যিনি রাহুলের সঙ্গে উড়োজাহাজটিতে ছিলেন। তিনি এ বিষয়ে তদনেৱর দাবি করে সিভিল এভিয়েশন রেগুলেটরে একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। কৌশল বলেন, হঠাৎ করেই উড়োজাহাজটি ‘সন্দেহজনক এবং উল্টাপাল্টা আচরণ করতে থাকে’। তিনি বলেন, গুরম্নত্বপূর্ণ প্রশ্ন হচ্ছে, এটা কেউ ইচ্ছাকৃতভাবে করেনি তো? এই প্রশ্ন আপনি এড়িয়ে যেতে পারবেন না, আপনাকে উত্তর দিতে হবে। এজন্য তদনৱ প্রয়োজন। স’ানীয় সময় সকাল ৯টা ২০ মিনিটে রাহুলকে বহনকারী চাটার্ড উড়োজাহাজটি দিলিস্ন থেকে উড্ডয়ন করে। প্রায় পৌনে ১১টার দিকে সেটি হঠাৎ করেই একদিকে কাত হয়ে যায় বলে জানান কৌশল। সেটি ভয়ঙ্কর রকমভাবে কাঁপতে কাঁপতে নিচের দিকে নামতে শুরম্ন করে। যদিও বাইরের আকাশ একদম পরিষ্কার ছিল। উড়োজাহাজটির একদিক থেকে ক্রামগত ঠং ঠং আওয়াজ আসছিল। ৪০ মিনিটের অগ্নিপরীক্ষার পর পাইলট বিমানবন্দরে অবতরণ করতে সক্ষম হন। পুরো সময়ে যাত্রীরা আতঙ্কিত ছিল এবং প্রাণ হারানোর ভয়ে ভীত হয়ে পড়লেও রাহুল মাথা ঠা-া রেখে শানৱ ছিলেন জানিয়ে তিনি আরও বলেন, “তিনি পাইলটদের পাশে দাঁড়িয়ে পরিসি’তি শানৱ রাখার চেষ্টা করেছেন। এ ঘটনার পর সিভিল এভিয়েশন রেগুলেটরের পক্ষ থেকে কারণ ব্যাখ্যায় বলা হয়, উড়োজাহাজটি ‘অটোপাইলট মুডে’ থাকা এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছিল। এক কর্মকর্তা বলেন, “পরে পাইলট ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে নিরাপদে উড়োজাহাজটি নামিয়ে আনেন। অটোপাইলট মুডে এ ধরণের ঘটনা বিরল নয়। কংগ্রেসের মুখপাত্র বলেন, “এটা বিমানে যান্ত্রিক ত্রম্নটির গুরতর ঘটনা। ভয়ঙ্কর একটি দুর্ঘটনা এড়িয়ে যাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুরো বিষয়টি তদনৱ করে দেখায়, বিশেষ করে কেউ ইচ্ছাকৃতভাবে এটা করেছে কিনা সেটা খতিয়ে দেখার আবেদন করা হয়েছে।”

Leave a Reply