তৈয়বুর রহমান: রাজশাহী নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ওয়াসার সাপৱাই পানির সাথে আসছে ময়লা ও দুর্গন্ধ। দীর্ঘ দিন ব্যবস্থা না নেয়ায় এ নিয়ে নগরবাসীর দুর্ভোগ এখনো চরমে। এলাকাবাসীর পৰ থেকে বারবার অভিযোগ দেয়া সত্ত্বেও টনক নড়েনি ওয়াসা কর্তৃপৰের। এলাকাবাসী এলাকার কাউন্সিলর ও ওয়াসার কাছে ধর্ণা দিয়েও কোন উদ্যোগ নেয়া হয়নি ব্যবস্থা।
ওয়াসার সাপৱাই পানির সাথে দুর্গন্ধ ও ময়লা আসার ঘটনা দীর্ঘ দিনের। এনিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে এর আগেও। কিন্তু কিছুতেই কিছু হচ্ছে না। এক স্থানের ময়লা দুর্গন্ধ পানি আসা বন্ধ হলেও নতুন করে অন্য স্থানে পানির সাথে ময়লা আসছে।
ওয়াসার সরবরাহকৃত পানি নগরবাসীর অপরিহার্য কাজে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। রান্না করা, থালা-বাসন মাজা, কাপড় কাচা, গোসল করা এমন কি ঘর ধোয়া মোছার কাজ চলে এই সাপৱাই করা পানি দিয়ে। এতে ময়লা ও দুর্গন্ধযুক্ত পানি আসায় বাড়ির নিত্য প্রয়োজনীয় কাজের সমস্যায় পড়তে হচ্ছে।
বেশ কিছুদিন ধরে নগরীর পলিটেকনিকের সামনে সপুরা এলাকায় ওয়াসার সাপৱাই পানির সাথে আসছে ময়লা ও দুর্গন্ধযুক্ত পানি। প্রায় দুই তিন মাস আগে থেকে এ অবস্থা চলছে বলে জানালেন এলাকার চা-এর দোকানদার মনির্বজ্জামান। এ নিয়ে সপুরাবাসীর পৰ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে। অথচ কাজের কাজ কিছুই হয়নি। অবিলম্বে ব্যবস্থা না নেয়া হলে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপৰ বরাবর ধর্ণা দেয়া হবে বলে এলাকাবাসী জানান।
এ ব্যাপারে সপুরা এলাকার (বাসা নং১৮০) জনৈক নূর আহমেদ বলেন, গত দুই-তিন মাস আগে থেকে সপুরা এলাকায় সাপৱাই পানির সাথে কাদাসহ ময়লা আসছে। এ পানিতে এতো দুর্গন্ধ যে খাওয়াতো যায় না। এমন কি গোসল, থালা বাসন মাজা, কপিড় খাচাও যায় না। তার প্রতিবেশি রওশন আরা (বাসা নং ১৭৯) একই অভিযোগ করে বলেছেন আমরা মাসে মাসে চার ও পাঁচ হাজার টাকা করে ট্যাঙ দিই। আমরা এ ট্যাঙ দিয়ে কেন এ দুর্ভোগ বহন করবো। এমন অভিযোগ আশপাশের বাসাবাড়ি থেকেও পাওয়া যাচ্ছে। এ নিয়ে ১৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সোবহান লিটনকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন আমার কাছে এ অভিযোগ এসেছে। আমি ওয়াসা কর্তৃপৰকে জানিয়েছি। অথচ এ পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি বলে তিনি জানান।
এলাকাবাসীর পৰ থেকে ৰুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলা হয়েছে সাপৱাই পানি দিয়ে আমাদের রান্না বান্না চলে। সাপৱাই পানির সাথে ময়লা ও দুর্গন্ধযুক্ত পানি আ্‌সায় রান্না-বান্নাসহ বাড়ির নিত্যপ্রয়োজনীয় সকল ধরনের কাজে অচলাবস্থা দেখা দিয়েছে। বাড়ির কাজের জন্য পুকুর ও চাপকল থেকে পানি আনার ভয়ে কাজের লোক পর্যন্ত কাজ ছেড়ে দিচ্ছে। এনিয়ে চরম বিপাকে পড়েছে সাধারণ মানুষ।
সাপৱাই পানির সাথে ময়লা ও দুর্গন্ধযুক্ত পানি আসার ঘটনা শুধু সপুরা নয়, নগরীর অন্যান্য এলাকাতেও একই ঘটনা ঘটছে। এর পূর্বেও হড়গ্রাম ও মহিষবাথান, বিলসিমলা, তেরখাদিয়াসহ নগরীর অনেক গুর্বত্বপূর্ণ এলাকাতেও দুর্গন্ধযুক্ত পানি আসার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
তবে ভূক্তভোগীদের ইতোপূর্বে পানি ও গ্যাস লাইন বসাতে গিয়ে বিভিন্ন স্থানে রাস্তা অনেক কাটা-খোঁড়া হয়েছে। সে সময় হয়তো পানির সাপৱাই লাইনের পাইপ ফেটে কিম্বা ভাঙ্গা-চুরা অবস্থায় মাটি দিয়ে ঢেকে দেয়া হয়েছে। ঐসব ভাঙ্গা পাইপ দিয়ে ময়লা ও দুর্গন্ধযুক্ত পানি আসতে পারে বলে তারা ধারণা করছেন।
এব্যাপারে রাজশাহী পানি সরবরাহ ও পয়ঃনিষ্কাশন কর্তৃপৰের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী পারভেজ মামুদ বলেন, আমি এই প্রথম জানলাম। এর আগে এ ব্যাপারে আমার কাছে কোন অভিযোগ এসে পৌঁছেনি। আমি এ ব্যাপারে দ্র্বত পদৰেপ নিচ্ছি।