বোরো আবাদে ঝুঁকছে চাষিরা

11/02/2018 2:09 am0 commentsViews: 50

কাজী নাজমুল ইসলাম: রাজশাহীর চাষিরা এখন চলতি মৌসুমের বোরো আবাদ নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। বর্তমানে ধান-চালের ভালো দাম পাওয়ায় চলতি মৌসুমে বোরো আবাদ বৃদ্ধির সম্ভাবনার কথা জানিয়েছেন সংশিৱষ্টরা।
বোরো চাষি ও কৃষিবিদদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে রাজশাহীর চাষিরা কয়েক বছর যাবত সেচ কম লাগে এ ধরনের আবাদের দিকে ঝুঁকছেন। কৃষি বিভাগের পৰ থেকেও চাষিদের এ ব্যাপারে উৎসাহিত করা হয়েছে। অপরিকল্পিতভাবে গভীর নলকূপের মাধ্যমে এই অঞ্চলের ভূগর্ভস্থ পানি উত্তোলনের ফলে দিন দিন পানির স্তর নীচে নেমে যাচ্ছে। ফলে গভীর নলকূপগুলোতেও আগের মত আর পানি উঠছে না। এতে অনেক এলাকায় সেচের পানিও ঠিকমত পাওয়ার নিশ্চয়তা নেই। এই প্রতিকূল পরিস্থিতিতে অনেক চাষি বোরো আবাদ থেকে সরে এসে কম সেচের আলু, গম, ভুট্টা, সবজিসহ অন্যান্য আবাদ করছিলেন।
কিন্তু চলতি মৌসুমের বোরো আবাদ বৃদ্ধি পাবার সম্ভাবনার কথা বলছেন এই অঞ্চলের চাষিরা। কারণ হিসেবে তারা বলছেন, এবার আউশ ও আমন মৌসুমে এই অঞ্চলের চাষিরা ধান-চালের ভালো দাম পেয়েছেন। তাই লাভের আশায় অন্যান্য বছরের চেয়ে এবার তারা বেশি জমিতে বোরো মৌসুমের ধান রোপণের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।
পবার বিল নেপালপাড়ার কৃষক কর্ণহার বড়বিলা পানি ব্যবস্থাপনা এসোসিয়েশনের সভাপতি নূর্বল আমিন জানালেন, তার এলাকার চাষিরা এখন ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন বোরো আবাদ নিয়ে। এবার তিনি ৬ বিঘা জমিতে বোরো আবাদ করছেন। গত বছর করেছিলেন সাড়ে ৩ বিঘায়। বর্তমানে ধানের দাম ভালো থাকায় তিনি বেশি জমিতে বোরো আবাদ করছেন। বর্তমানে প্রতিমন (৪০ কেজি) ধান ১২/১৩শ’ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গতবছর এসময় যার দাম ছিল ৮/৯শ’ টাকা। এবার দাম ভালো থাকায় তার এলাকার সব কৃষকই বেশি জমিতে বোরো আবাদ করছে। এর ফলে জমির লীজ মূল্য ও চারার দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। গত বছর বোরো চাষের জন্য প্রতি বিঘা জমির লীজ মূল্য ছিল ৫ হাজার টাকা। এবার তা বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়িয়েছে ৮ হাজার টাকায়। অন্যদিকে প্রতিকূল আবহাওয়ায় কিছু চারা ৰতিগ্রস্ত হওয়ায় ধানের চারার দামও বেড়েছে। গতবছর প্রতি বিঘায় ১ হাজার টাকার চারা লাগলেও এবার লাগছে ২ থেকে ৩ হাজার টাকা।
আঞ্চলিক কৃষি তথ্য কর্মকর্তা কৃষিবিদ আব্দুলৱাহ- হিল- কাফী জানান, বোরোর পরিবর্তে সেচ কম লাগে এধরনের আবাদের জন্য বরেন্দ্র অঞ্চলের চাষিদেরকে কয়েক বছর যাবত পরামর্শ দিয়ে আসছিল কৃষি বিভাগ। কিন্তু এবার হাওড় অঞ্চলে বন্যায় ধানের ৰতি হওয়ায় খাদ্য নিরাপত্তার বিষয়টি মাথায় রেখে বোরো চাষের ব্যাপারে কৃষকদের নির্বৎসাহিত করা হচ্ছে না। তাছাড়া ধানের দাম ভালো থাকায় এবার বেশি জমিতে বোরো আবাদের প্রস্তুতি নিয়েছেন এই অঞ্চলের চাষিরা।
রাজশাহী কৃষি সমপ্রসারণ অধিদপ্তর জানায়, চলতি মৌসুমে রাজশাহী জেলায় বোরো আবাদের লৰ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৬৬ হাজার ৩১৯ হেক্টরে। এজন্য বীজতলা তৈরি করা হয়েছে ৪ হাজার ৩৪৫ হেক্টরে। ইতোমধ্যে চারা রোপণ করা হয়েছে প্রায় ১২ হাজার হেক্টরে। বর্তমানে ধানের দাম ভালো থাকায় এবার বোরো আবাদ লৰ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবার সম্ভাবনা রয়েছে।

Leave a Reply