স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী জেলায় নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে বলে বেসরকারী বিভিন্ন সংস’া উদ্বেগ প্রকাশ করেন।
এ্যাসোসিয়েশন ফর কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট (এসিডি) জানায়, রাজশাহী জেলার মহানগর ও নয়টি থানায় গত মাসে মোট ১৪ টি নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। এরমধ্যে নারী নির্যাতনের ঘটনা ৭টি ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে ৭ টি। আলোচিত ঘটনার মধ্যে, গত ৩ সেপ্টেম্বর গোদাগাড়িতে নববধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার, ১৬ সেপ্টেম্বর পবার বিলপাড়ায় পুলিশ পরিচয়ে দুই বখাটের ১০ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণ, ১৬ সেপ্টেম্বর বাঘায় স্ত্রীর শরীর আগুনে দিয়ে ঝলসে দিয়েছে তার স্বামী।
এদিকে, বেসরকারী উন্নয়ন সংস’া লেডিস অর্গানাইজেশন ফর সোসাল ওয়েলফেয়ার (লফস) জানায়, গত মাসে ২৫ জন নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। এরমধ্যে শিশু ১৫ জন ও নারী ১০ জন। আলোচিত ঘটনার মধ্যে, নগরীর শিরোইল এলাকায় ৮ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে অপহরণ, নওহাটার শ্রীরামপুরে শিশুকে পানিতে ডুবিয়ে হত্যার চেষ্টা, পুঠিয়ায় চতুর্থ শ্রেণির স্কুল ছাত্রী কে ধর্ষণের চেষ্টা, পদ্মা থেকে কিশোরীর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার, গোদাগাড়ীতে যৌতুকের জন্য গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ, জাতিসংঘ মানবাধিকার কর্মকর্তা স্ত্রী নির্যাতন মামলায় কারাগারে, এ সকল ঘটনার সুষ্ঠ বিচারের দাবী জানিয়ে দোষি ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান সংস’া দুটি।