গ্যাস সংযোগে বাধা অপসারণ অপরিহার্য

12/01/2018 2:04 am0 commentsViews: 26

উন্নয়নের জন্য জ্বালানি অপরিহার্য। নিরবচ্ছিন্ন জ্বালানি সরবরাহ উৎপাদনকেও নিরবচ্ছিন্ন করতে পারে। তাই জ্বালানি সরবরাহে অবহেলা জনজীবনে অস্থিরতা সৃষ্টির পাশাপাশি উন্নয়নকেও ব্যাহত করবে, অস্বীকার করা যাবে না। তাই উন্নয়নের গতি স্বাভাবিক রাখতে জ্বালানি সরবরাহ নিরবচ্ছিন্ন রাখার বিকল্প নেই।
তবে রাজশাহীর উন্নয়নের ৰেত্রে জ্বালানি ঘাটতি দীর্ঘস্থায়ী সমস্যা হিসেবে দেখা দিয়েছে। বাংলাদেশে গ্যাসভিত্তিক শিল্পায়ন গতি পেলেও রাজশাহী অঞ্চল এ ৰেত্রে পিছিয়ে পড়েছে গ্যাসের অভাবেই। অন্য অঞ্চলের তুলনায় সবচেয়ে দেরিতে গ্যাস সংযোগের আওতায় এলেও তা বন্ধ হয়ে যেতে সময় লাগেনি। দুই বছরে নয় হাজার ১৫৫টি বাসাবাড়ি, আটটি কারখানা ও একটি সিএনজি স্টেশনে গ্যাস সংযোগ দেয়ার পর হঠাৎ তা বন্ধ করা নিয়ে বিতর্ক আছে। রাজশাহীতে গ্যাস সংকটের আলামত না থাকলেও সরকারি নিষেধাজ্ঞার কারণেই নতুন সংযোগ বন্ধ রাখা নিয়ে জনমনে ৰোভও রয়েছে।
কারণ ১১ হাজার গ্রাহকের আবেদনপত্রের পাশাপাশি ৫৫০ জন গ্রাহক ডিমান্ড নোট হাতে পেয়েও গ্যাস সংযোগ থেকে বঞ্চিত হয়েছেন বলে জানিয়েছে পশ্চিমাঞ্চল গ্যাস কোম্পানী লিমিটেড (পিজিসিএল)। জমে থাকা আবেদনপত্রের মধ্যে ৩০টি শিল্প প্রতিষ্ঠানের কাগজপত্রেও ধুলা জমেছে। অথচ, এ পর্যন্ত আসার আগে অনেককেই প্রস্তুতিমূলক কাজে বড় অংকের টাকা ব্যয় করতে হয়েছে। ডিমান্ড নোট ইস্যু হওয়া গ্রাহকেরা ন্যূনতম ছয় হাজার ৩০০ টাকা থেকে শুর্ব করে ৫০/৬০ হাজার টাকা পর্যন্ত খরচ করে এখন আঙ্গুল চুষতে বাধ্য হচ্ছেন। কাজেই ৰোভ জমা স্বাভাবিক। ৰোভের বশবর্তী হয়ে গ্রাহকেরা জমা দেয়া টাকা তুলে নিতে শুর্ব করেছেন, এমন খবরও জানা গেছে।
গ্যাসের জন্য রাজশাহীবাসীকে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন-সংগ্রাম এমনকি হরতাল পর্যন্ত করতে হয়েছে। অবশেষে গত সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের সপ্তাহ খানেক আগে তড়িঘড়ি করে ১০৮ কোটি টাকা ব্যয়ে পাইপ লাইন স্থাপনে নগরবাসী আনন্দে মেতে উঠলেও তা যে সাময়িক সেটা কেউ ভাবেনি।
গত সিটি নির্বাচনে সরকার দলীয় প্রার্থীর পরাজয়ের সাথে গ্যাস সংযোগ বন্ধ হয়ে যাওয়ার সম্পর্ক নিয়েও কথা উঠেছে। আসন্ন সিটি নির্বাচনে এই ইস্যু সামনে চলে আসার আশঙ্কাও উড়িয়ে দেয়া যায় না। সরকার দলীয় প্রার্থী এর মধ্যেই নির্বাচিত হলে যে কোনো মূল্যে গ্যাস সংযোগ প্রদানের ধারাবাহিকতা রৰা করার প্রতিশ্র্বতি দিয়েছেন। নির্বাচনী ইশতেহারে শীর্ষ অবস্থানে থাকবে গ্যাস, এমন নিশ্চয়তার পাশাপাশি বাসাবাড়িতে গ্যাস সংযোগ দেয়াসহ রাজশাহীতে গ্যাস নির্ভর রপ্তানিমুখী পোশাক কারখানা গড়ে তোলার উদ্যোগের প্রতিশ্র্বতিও দিয়েছেন তিনি।
আমরা রাজশাহীর উন্নয়নের স্বার্থেই গ্যাস সংযোগের ৰেত্রে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবির সঙ্গে একাত্মতা জানাতে চাই। দ্র্বত শিল্পায়ন ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির জন্যই রাজশাহীতে চাহিদামত গ্যাস সংযোগ অপরিহার্য, এটা জোর দিয়েই বলতে হয়।

Leave a Reply