স্বস্তিতে হাঁটতে পারছে না মানুষ

12/01/2018 2:09 am0 commentsViews: 54

এম আই বাবু : রাজশাহী নগরীর রাজপথ পরিবহনের দখলে আর ফুটপাত গেছে ব্যবসায়ীদের দখলে। স্বস্তিতে হাঁটতে পারছে না মানুষ।
রাস্তাতে বের হলেই দেখা মিলবে সারি সারি অটো আর রিকশা। কোন নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে পুরো রাস্তা জুড়ে তিন, চার বা তারও বেশি পাশাপাশি দাঁড়িয়ে আছে অটো রিকশা বা বিভিন্ন ধরনের যানবাহন। রাস্তার পাশে দাঁড় করানো আছে ট্রাক বা অন্য কোন পরিবহন। মানুষ চলাচল করতে পার্বক বা নাই পার্বক সে চিন্তা নেই কারো। আবার অটো নিয়ন্ত্রণের নামে কোন কোন মোড়ে অটো চালকদের নিকট থেকে আদায় করা হচ্ছে চাঁদা। কার নির্দেশে এই চাঁদা আদায় হচ্ছে তা জানে না অটো চালকরা। তবে অভিযোগ রয়েছে আদায় করা এই অর্থের একটা নির্দিষ্ট ভাগ পেয়ে থাকে আড়ালে থাকা একটি মহল। যার কারণে নির্বিঘ্নে এরা চালিয়ে যাচ্ছে চাঁদাবাজি। কোন কোন অটোচালক এর প্রতিবাদ করলে তাকে লাঞ্ছিত করার ঘটনাও ঘটে। যা নিয়ে ৰোভ রয়েছে অটো চালকদের মধ্যে।
অন্যদিকে ফুটপাত জুড়ে বিভিন্ন দোকানপাট বা শোর্বমের পণ্য প্রদর্শনীর জন্য রাখা হয়। এমনও দেখা গেছে ফুটপাতে হোটেলের চুলা রেখে করা হচ্ছে ভাজা পোড়ার কাজ। আর শুধু ফুটপাতই বা কেন প্রধান সড়ক জুড়েও বসছে বিভিন্ন দোকানপাট। এ অবস’া দেখা যাবে নগরীর সাহেব বাজার সোনাদিঘির মোড় থেকে সাবেক কল্পনা সিনেমা হল, কোর্ট বাজার, লক্ষ্মীপুর বাজার, রেলগেট, গোরহাঙ্গা বিনোদপুর বাজারসহ নগরীর বিভিন্ন জনবহুল ও ব্যস্ত এলাকায়। উপায়হীন মানুষ এরই মধ্যে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে বাধ্য হচ্ছে। নগরীর প্রতিটি বাজার এলাকায় একই অবস’া বিরাজ করছে।
ফুটপাত নিয়েও মানুষের রয়েছে অসন্তোষ। দখল দারিত্বের কারণে ফুটপাত দিয়ে মানুষের হাঁটাচলা করার উপায় নেই। কোন কোন মোড়ে লাঠি নিয়ে ট্রাফিক পুলিশ যানজট ছাড়ানোর চেষ্টা করলেও কার্যত এর ফল পাচ্ছে না নগরবাসি। অটোর কারণে মানুষের চলাচলের ৰেত্রে সুবিধা হলেও নিয়ন্ত্রণহীন অটো চলাচলের কারণে নগরীর রাস্তাগুলিতে বাড়ছে যানজট। অদৰ অটো চালকের কারণে প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা।
অভিযোগ রয়েছে অটোচালকদের অনেকেরই কোন প্রশিৰণ নেই। অটো কিনেই নেমে পড়েছেন রাস্তায়। আর চলাচলের ৰেত্রে নেই কোন নিয়ম কানুন বা নিয়ন্ত্রণ। চলাচলে স্বেচ্ছাচার চলাচল এবং নিয়ন্ত্রণহীন অটোর কারণে হরহামেশাই ঘটছে দুর্ঘটনা। নগরীর মহিষবাথান এলাকার জহিরউদ্দিন বাবর নামে জনৈক ব্যক্তিকে পেছন থেকে অটো ধাক্কা দিলে তার হিপজয়েন্ট ভেঙে দীর্ঘদিন তিনি বিছানাগত হয়ে ভোগান্তির পাশাপাশি চিকিৎসার পেছনে বিপুল অর্থ ব্যয় করেও পুরো সুস’ হতে পারেননি। অন্যদিকে নগরীর সাহেব বাজার এলাকায় রাস্তার পাশে ভাজাপোড়ার গরম তেল গায়ে পড়ে এক নারী মারাত্মকভাবে দগ্ধ হওয়ার ঘটনা অনেকেরই জানা।
অবশ্য প্রশাসন মাঝে মাঝে ফুটপাত থেকে অবৈধ দোকানপাট উচ্ছেদ করলেও অল্প দিনের ব্যবধানে তা আবার ফিরে যায় আগের অবস’ায়। ভাঙা গড়ার এ খেলা বন্ধ করে যানজট ও দখলমুক্ত নিরাপদ রাস্তার প্রত্যাশা মানুষের। কলেজ প্রভাষক আনোয়ার্বস সাদাত জানান অটোর কারণে যেমন বেকারত্ব কিছুটা হলেও ঘুচেছে তেমনি অদৰ চালক এবং অনিয়ন্ত্রিত অটো চলাচলের কারণে রাস্তায় চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে।
বিশেষ করে শিৰা প্রতিষ্ঠানের সামনে জটলার কারণে ছোট ছোট ছেলে মেয়েদের পারাপারের ৰেত্রে পড়তে হয় সমস্যায়। তিনি মনে করেন অটো চলাচলে যেন শৃঙ্খলা বজায় থাকে সে দিকে নজর দেয়া জর্বরি প্রশাসনের।

Leave a Reply