এফএনএস আন্তর্জাতিক ডেস্ক : গত শনিবার জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৩তম বার্ষিক অধিবেশনে একতরফাভাবে পরমাণু কর্মসূচি পরিত্যাগ না করার ঘোষণা দিয়েছে উত্তর কোরিয়া। এ ঘোষণা দেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী রি ইয়ং-হো। তিনি বলেন, ওয়াশিংটন যতদিন উত্তর কোরিয়ার বির্বদ্ধে কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে রাখবে ততদিন পিয়ংইয়ং ‘কোন অবস’াতেই’ একতরফাভাবে নিজের পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচি পরিত্যাগ করবে না। তিনি বলেন, উত্তর কোরিয়ার বির্বদ্ধে নিষেধাজ্ঞা বহাল রেখে যুক্তরাষ্ট্র নিজের প্রতি পিয়ংইয়ং-এর অবিশ্বাস আরও গভীর করে তুলছে। উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমেরিকার প্রতি গভীর অবিশ্বাসের কারণে আমরা জাতীয় নিরাপত্তার প্রশ্নে কোনও ছাড় দেবো না এবং আমরা আগেই নিজেদের নিরস্ত্র করবো না।’ সামপ্রতিক সময়ে উত্তর কোরিয়া ‘উলেৱখযোগ্য মাত্রায়’ সদিচ্ছার পরিচয় দিয়েছে বলেও তিনি উলেৱখ করেন। রি ইয়ং-হো বলেন, পরমাণু অস্ত্র ও ৰেপণাস্ত্র পরীৰা স’গিত রাখা, পরমাণু অস্ত্র পরীৰা কেন্দ্র বন্ধ করে দেয়া এবং পরমাণু অস্ত্র ও প্রযুক্তির বিস্তার না ঘটানোর প্রতিশ্র্বতি দেওয়ার মতো ইতিবাচক পদৰেপ নিয়েছে পিয়ংইয়ং। কিন’ এর বিনিময়ে আমেরিকার পৰ থেকে কোনো পাল্টা পদৰেপ দেখতে পায়নি উত্তর কোরিয়া। উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী এমন সময় তার দেশের ওপর আরোপিত মার্কিন নিষেধাজ্ঞার বির্বদ্ধে বক্তব্য দিলেন যখন ওয়াশিংটন একাধিকবার বলেছে, পিয়ংইয়ং পরমাণু অস্ত্র পুরোপুরি ধ্বংস করার আগ পর্যন্ত দেশটির ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হবে না। গত ১২ জুন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন সিঙ্গাপুরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ঐতিহাসিক বৈঠকে মিলিত হন। সেখানে তিনি কোরীয় উপদ্বীপকে পরমাণু অস্ত্রমুক্ত করার মৌখিক প্রতিশ্র্বতি দেন। তবে এর পরিবর্তে আমেরিকাকে উত্তর কারিয়ার বির্বদ্ধে বিদ্বেষী আচরণ পরিহার করার আহ্বান জানান। ওই সাৰাতের আগে কিম বলতেন, সম্ভাব্য মার্কিন আগ্রাসন প্রতিহত করার লৰ্যে তার দেশ পরমাণু অস্ত্র তৈরি করেছে। সূত্র: রয়টার্স, পার্স টুডে।