এফএনএস: আগামী ৩ অক্টোবর দেশের জেলায় জেলায় সমাবেশ, জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান এবং ৪ অক্টোবর মহানগর-গুলোতে সমাবেশ ও বিভাগীয় কমি-শনার বরাবর স্মারকলিপি দেওয়ার কর্মসূচি দিয়েছে বিএনপি। গতকাল রোববার বিকালে বাংলাদেশ জাতী-য়তাবাদী দল (বিএনপি) আয়োজিত জনসভায় এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখর্বল ইসলাম আলমগীর।
খালেদা জিয়ার মুক্তি, তারেক রহমানের মামলা প্রত্যাহার, সুষ্ঠু ও নিরপেৰ নির্বাচনের দাবিতে এসব কর্মসূচি দেওয়া হয়। বিএনপির মহাসচিব জানান, পর্যায়ক্রমে আরও কর্মসূচি আসবে। জনসভায় ৭ দফা ও ১২টি লৰ্যও ঘোষণা করা হয়। ‘মাদার অব ডেমোক্রেসি’ খালেদা জিয়ার মুক্তি, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বির্বদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার, সব নেতাকর্মীর বির্বদ্ধে মামলা প্রত্যাহার, নিরপেৰ সরকারের অধীনে সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনের দাবিতে সমাবেশ করছে বিএনপি। গতকাল রোববার দুপুর ২.১০ মিনিটে কোরান তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে সমাবেশ শুর্ব হয়। কোরআন তেলাওয়াত করেন ওলামা দলের সাধারণ সম্পা-দক মাওলানা নেসার্বল হক। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে কারাবন্দি খালেদা জিয়ার সম্মানে চেয়ার খালি রাখা হয়। সভাপতিত্ব করেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখর্বল ইসলাম আলমগীর। প্রধান বক্তা ছিলেন স’ায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। জন-সভায় কারাগারে থাকা দলীয় চেয়ারপারসনকে সম্মান জানাতে তাকে প্রধান অতিথি করে চেয়ার খালি রাখা হয়।
এ বিষয়ে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ জানান, গত ৮ ফেব্র্বয়ারি বেগম জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর থেকে দলের বৈঠক-গুলোতে তার সম্মানে চেয়ার খালি রেখেছি। তার ধারাবাহিকতায় প্রথম রমজানে এতিমদের ইফতারের মঞ্চেও তার সম্মানে চেয়ার খালি রাখা হয়েছে। গতকালকেও জন-সভায় বেগম জিয়ার সম্মানে চেয়ার খালি রাখা হয়েছে।