আইএইচটি অনির্দিষ্টকাল বন্ধ ঘোষণা

07/12/2017 2:09 am0 commentsViews: 62

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী নগরীর লক্ষ্মীপুরস’ ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি (আইএইচটি) অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে ছাত্রীদের ওপর হামলা ও মারপিটের ঘটনায় কলেজ কর্তৃপৰ প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ ঘোষণা করে। ঘোষণার পর বেলা ১ টার মধ্যে ছাত্র ও বেলা ৩ টার মধ্যে ছাত্রীরা হোস্টেল ত্যাগ করেন।
প্রত্যৰদর্শী সূত্রে জানা যায়, ছাত্রী হোস্টেলের নিরাপত্তা ও ইনস্টিটিউট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতা-কর্মীর বির্বদ্ধে ছাত্রী নির্যাতন, হোস্টেলের সিট বাণিজ্য ও অবৈধভাবে বসবাসের প্রতিবাদে গতকাল সকাল ১০টার দিকে অধ্যৰের র্বমে বিচার দাবি করেন ছাত্রলীগের এক অংশের ছাত্রীরা। এ সময় অধ্যৰ সিরাজুল ইসলাম দাবিটি বিবেচনা করবেন বলে তাদের আশ্বস্ত করেন। এরপর পুলিশ প্রহরায় তিনি ছাত্রীদের হোস্টেলে রাখতে যান।
এ সময় হোস্টেলের গেটের কাছে পৌঁছালে পুলিশ ও অধ্যৰ’র সামনে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা তাদের ওপর হামলা চালায় এবং মারপিট করে। এতে করে ফার্মেসী ২য় অনুষদের ছাত্রী নাছনীন আক্তার নাবিলা, রেডিওথেরাপী ২য় অনুষদের র্বকাইয়া খাতুন, রেডিওলজি ১ম অনুষদের মোহনা খাতুনসহ ৫ জন আহত হন। আহতদের মধ্যে তিনজনকে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং বাকিরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। এ ঘটনায় তাৎৰণিক কলেজ একাডেমির জর্বরি মিটিং-এর সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অনির্দিষ্টকালের জন্য কলেজ বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এতে করে চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়েন ছাত্রীরা।
এদিকে ছাত্রীদের অভিযোগ, এর আগে গত ৩ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু মেডিকেল টেকনোলজিস্ট-এর উদ্যোগে ভুয়া টেকনোলজিস্ট বাতিলের দাবিতে দেশব্যাপী এক মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। তার অংশ হিসাবে রাজশাহীর সাহেব বাজারেও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়র্বজ্জামান লিটন প্রধান অতিথিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সমাজসেবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ অংশ গ্রহণ করেন। মানববন্ধনে আইএইচটি’র ৪৮ জন ছাত্রী অংশগ্রহণের জন্য আসার সময় ছাত্রলীগ নেতারা মূল ফটকে তালা মেরে তাদেরকে অবর্বদ্ধ করে রাখে। এছাড়াও তারা হোস্টেলে প্রবেশ করে এবং ছাত্রীদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও প্রাণনাশের হুমকি দেয়।
এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী রেজওয়ানা সুলতানা, সহকারী হোস্টেল সুপার ও সাধারণ শিৰার্থীরা অধ্যৰ বরাবর জাহিদ ও তুহিনের নাম উলেৱখসহ ব্যবস’া গ্রহণের জন্য লিখিত তিনটি অভিযোগ দেন। কিন’ অধ্যৰ ব্যবস’া গ্রহণ না করায় গতকাল ছাত্রীরা অধ্যৰ’র র্বমে গিয়ে বিচার দাবি করে। এছাড়াও ছাত্রীদের অভিযোগ, দুই ছাত্রনেতা কলেজ ছাত্রত্ব শেষ করেছে এরপরও অবৈধভাবে হোস্টেলে অবস’ান করে। গত ২৯ অক্টোবর অবৈধভাবে অবস’ানকারীদের তিন কর্মদিবসের মধ্যে হোস্টেল ত্যাগের জন্য একটি নোটিশ দেন সেই সময়ের ভারপ্রাপ্ত অধ্যৰ ডা. মোহা. আনোয়ার্বল ইসলাম। কিন’ বর্তমান অধ্যৰ ব্যবস’া গ্রহণ না করে বিষয়টি ধামাচাপা রেখেছেন বলে ছাত্রীরা অভিযোগ করেন।
এ ব্যাপারে কলেজ অধ্যৰ ডা. সিরাজুল ইসলাম বলেন, ছাত্রীদের অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত সাপেৰে ব্যবস’া গ্রহণ করা হবে।
অপরদিকে রাজপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাফিজুর রহমান বলেন, বিষয়টি তদন্তপূর্বক ব্যবস’া নেয়া হবে।

Leave a Reply