কমছেই না পেঁয়াজের ঝাঁঝ

02/12/2017 2:09 am0 commentsViews: 23

স্টাফ রিপোর্টার: সরবরাহ বৃদ্ধি পাওয়ায় রাজশাহীতে সবজির দর আরেক দফা কমলেও আগের মতই বৃদ্ধি প্রাপ্ত দামে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ। গতকালও এখানে প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে সর্বোচ্চ ১শ’ টাকায়।
গতকাল শুক্রবার রাজশাহী মহানগরীসহ এর উপকন্ঠের বাজারগুলোতে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গতকালও এখানে প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ ৯০ থেকে ১শ’ টাকায় এবং ভারতীয় পেঁয়াজ ৭০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। তবে বাজারে নতুন পেঁয়াজ আসতে শুর্ব করেছে। গতকাল নতুন পেঁয়াজ প্রতিকেজি ৭০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। ক্রেতারা বলছেন, পেঁয়াজের ঘাটতি না থাকলেও মজুদদারদের কারসাজিতে দাম বেড়েছে। প্রশাসনের এদের বির্বদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া উচিত। খুচরা বিক্রেতারা বলছেন, বাজারে নতুন পেঁয়াজ আসতে শুর্ব করেছে। আগামী ১সপ্তাহের মধ্যে দাম আরো কমবে।
এদিকে শীত মৌসুমের প্রায় সব সবজিই বাজারে চলে এসেছে এবং সরবরাহও বেড়েছে। ফলে সবজির দাম আরো কমেছে। গতকাল খুচরা বিক্রেতারা প্রতিকেজি আলু ১২ থেকে ১৫, বেগুন ১৮ থেকে ২০, ফুলকপি ২০, পাতাকপি প্রতিপিস ২০, পটল ১৮, শশা ২৫ থেকে ৩৫, বিভিন্ন রকম শাক ১০ থেকে ১৫, পেঁপে ১৫, মিস্টি কুমড়া ২০, করোলা ৩০, প্রতিটি লাউ-কুমড়া ২০, প্রতিহালি কলা ১৫, লেবু ১২ থেকে ২০, আদা ৮০, রশুন ৯০, সজিনা ১শ’, ঢেড়স ২৫, সিম ৩০, কাঁচা মরিচ ৮০ টাকায় বিক্রি করেছে।
এছাড়া বাজারে নতুন চাল আসতে শুর্ব করায় দাম কমেছে। গতকাল সাহেব বাজারের খুচরা চাল বিক্রেতারা প্রতিকেজি নতুন গুটিস্বর্ণা ৩৯ থেকে ৪০, এলসি চাল ৪১/৪২, নতুন পারিজা/ স্বর্না ৪১/৪২, আটাশ চাল ৪৮ থেকে ৫৫ , মিনিকেট ৫৭ থেকে ৬১ টাকায় বিক্রি করেছেন। গতকাল প্রতিকেজি আটা খোলা ২৬/২৭ এবং প্যাকেট আটা ৩০/৩১ টাকায় বিক্রি হয়েছে।
এদিকে খাল-বিল-নদীর মাছ বাজারে আসায় দাম আরো কমেছে। গতকাল প্রতিকেজি ছোটমাছ রকম ভেদে ১শ’ থেকে ৪শ’, র্বই-কাতলা ১৪০ থেকে ২৫০, সিলভার কার্প ৯০ থেকে ১২০, পাংগাস ১শ’ থেকে ১৩০, ইলিশ রকমভেদে ৪শ’ থেকে ৮শ’ টাকায় বিক্রি হয়েছে। গতকাল প্রতিকেজি ব্রয়লার মুরগি ১২০, সোনালী ১৭০ এবং দেশি ২৭০ থেকে ৩শ’ টাকায় বিক্রি হয়েছে। প্রতিকেজি গর্বর মাংস ৪২০ থেকে ৪৫০, খাসির মাংস ৬শ’ থেকে ৭শ’ টাকায় বিক্রি হয়েছে। প্রতিহালি সাদাডিম ২২, লালডিম ২৪ টাকায় বিক্রি হয়েছে।
এছাড়া গতকাল প্রতিকেজি চিনি ৫২, মসুর ডাল বড়দানা ৬৫, ছোটদানা ৯৫, মুগডাল বড়দানা ৯০, ছোটদানা ১৬০, ছোলার ডাল ৯০, এংকর ডাল ৩৫ টাকায় বিক্রি হয়েছে। সয়াবিন তেল (খোলা) প্রতি লিটার ৮৪ টাকায় এবং বোতলজাত ১০০ থেকে ১০৫ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

Leave a Reply