রহিত হল সুগার আইন

14/11/2017 2:09 am0 commentsViews: 28

সোনালী ডেস্ক: মন্ত্রিসভার গতকাল সোমবারের বৈঠকে রহিত করা হয়েছে ‘বাংলাদেশ সুগার (রোড ডেভেলপমেন্ট সেস) আইন-২০১৪’। আইনটি বাতিল হওয়ায় সুগার মিলে ইৰু বিক্রয়কারী আখচাষিদের আর পরিবহনের নামে মণ প্রতি আর কোন টাকা মিল কর্তৃপৰকে দিতে হবে না।
প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে মন্ত্রী পরিষদের নিয়মিত বেঠকে পররাস্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এমপি আইনটি রহিত করণের প্রস্তাব উপস্থাপন করলে বিষদ আলোচনা শেষে তা রহিত করার সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।
রাষ্ট্রীয় প্রয়োজনে সুগার (রোড ডেভেলপমেন্ট সেস) অধ্যাদেশ-১৯৬০ এর অধিকতর সংশোধন এবং উক্ত অধ্যাদেশের অধীনে বিভিন্ন সময়ে কৃত কতিপয় সংশোধনী অধ্যাদেশের সমন্বয়ে ‘বাংলাদেশ সুগার (রোড ডেভেলপমেন্ট সেস) (সংশোধনী) আইন-২০১৪’ প্রনয়ণ করা হয়। আইনের আওতায় সুগার মিলে ইৰু বিক্রয়কারী প্রত্যেক ব্যক্তি মিলে ইৰু বিক্রয়ের জন্য সুগার মিল এলাকার ইৰু পরিবহনের সুবির্ধার্থে রাস্তা-ঘাট, ব্রীজ, কালভার্ট নির্মাণ ও সংস্কাররের নিমিত্তে তারা মণ প্রতি ৫০ পয়সা হারে টাকা দিয়ে আসছিল। আখচাষিরা দীর্ঘদিন থেকেই আইনটি রহিত করণের জন্য দাবি করে আসছিল। মিলে আখের মূল্য এমনিতেই অনেক কম, তার উপর পরিবহনের নামে মিল কর্তৃপৰকে একটি নির্দিষ্ট হারে টাকা প্রদান চাষিদের জন্য ছিল ‘মরার উপর খড়ার ঘা’।
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা মোতাবেক দেশে যে উন্নয়ন মূলক কর্মকা- চলছে তাতে এলজিইডি, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরসহ সংশিৱষ্ট দপ্তরসমূহ গ্রামে গঞ্জে রাস্তাঘাট, ব্রীজ-কালভার্ট সহ নানা ধরণের উন্নয়নমূলক কাজ করছে। সুগার মিল কর্তৃপৰের আলাদাভাবে কোন রাস্তাঘাট মেরামত বা নির্মাণের দরকার নাই। তিনি আরও বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর যে ‘উন্নয়ন ডিজাইন’ সেখানে আখচাষিদের কাছ থেকে এই ধরণের ‘উপকর’ নেওয়া বেমানান।

Leave a Reply