সোনালী ডেস্ক: রাজশাহীর পুঠিয়া ও নাটোর সদরে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ জন নিহত হয়েছেন।
পুঠিয়া পৌর প্রতিনিধি জানান, পুঠিয়ায় যাত্রীবাহী বাসের চাপায় এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এ সময় প্রায় এক ঘণ্টা যানবহন চলাচল বন্ধ ছিলো। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ও হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পুলিশ ও প্রত্যৰদর্শি সূত্র জানায়, শনিবার সন্ধ্যে ৭টার দিকে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কের পুঠিয়া পলিৱ বিদ্যুৎ অফিসের সামনে চারঘাট উপজেলার ভায়ালৰীপুর গ্রামের চারু প্রাং’র পুত্র আহম্মদ আলী (৬৫) রাস্তা পারাপারের সময় নাটোরগামী যাত্রীবাহী একটি বাস চাপা দিলে তিনি ঘটনাস্থলে মারা যান। এ সময় প্রায় ১ ঘণ্টা যানবহন চলাচল বন্ধ ছিল। পরে খবর পেয়ে থানা পুলিশ ও হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পবা হাইওয়ে ফাঁড়ি ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমান জানান, লাশটি উদ্ধার করে পুঠিয়া স্বাস্থ্য কমপেৱ্লঙে নেয়া হয়েছে। পরবর্তীতে লাশটির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।
নাটোর প্রতিনিধি জানান, নাটোর সদর উপজেলায় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় রশিদা বেগম (৬৫) নামে এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে। শনিবার বিকেলে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। রশিদা বেগম ওই গ্রামের হাবিবুর রহমানের স্ত্রী। এর আগে দুপুর ২টার দিকে উপজেলার বাঙ্গাবাড়িয়া গ্রামের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নাটোর সদর থানার এসআই রোজিনা খাতুন জানান, দুপুরে বৃদ্ধা তার বাড়ির কাছে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে রাস্তা পার হচ্ছিলেন। এ সময় একটি মোটরসাইকেলের ধাক্কায় তিনি আহত হন। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে নাটোর সদর হাসপাতাল পরে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি হলে তাকে রামেক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেলে তার মৃত্যু হয়।