রাজশাহীতে নতুন শিল্পাঞ্চল হচ্ছে

10/10/2017 1:08 am0 commentsViews: 110

স্টাফ রিপোর্টার: বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা বলেছেন, ওয়ার্কার্স পার্টি নিপীড়িত-শোষিত মানুষের পার্টি। যেখানেই মানবিক বিপর্যয় দেখা দেয়, সেখানেই ছুটে যায় ওয়ার্কার্স পার্টির নেতাকর্মীরা। এবার হাওর থেকে রাজশাহীর বাগমারা পর্যন্ত, সবখানেই বন্যা কবলিতদের পাশে দাঁড়িয়েছেন তারা।
তিনি বলেন, আজকে রোহিঙ্গাদের নির্যাতন করে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেয়া হচ্ছে। আমরা রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়িয়েছি। আমাদের পার্টির একটা টিম সারাৰণ টেকনাফ থেকে কঙবাজার পর্যন্ত রোহিঙ্গাদের জন্য কাজ করছে। যে সমস্ত নেতাকর্মী রোহিঙ্গাদের জন্য কাজ করছে, আমি তাদেরকে অভিনন্দন জানাই।
গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় রাজশাহী মহানগরীর ১৮ নম্বর ওয়ার্ডে ওয়ার্কার্স পার্টির জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। নগরীর শালবাগান পাওয়ার হাউজ মোড়ে এই জনসভার আয়োজন করা হয়। জাতিসংঘে রোহিঙ্গা ইস্যুতে পাঁচ দফা তুলে ধরায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ওই জনসভা থেকে রাজশাহীবাসীর পৰ থেকে অভিনন্দন জানান ফজলে হোসেন বাদশা।
বাদশা বলেন, জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রী বললেন- মানবিক কারণে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছি। প্রয়োজনে আমার খাবার আমি অর্ধেক খাবো। অর্ধেক খাওয়াবো রোহিঙ্গাদের। তিনি বলেন, আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী এভাবে চিন্তা করেন। আমাদেরও জনগণের উন্নয়নে ত্যাগের কথা মাথায় রেখে কাজ করতে হবে। বিগত ৮ বছর আমিও সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করেছি। স্কুল-কলেজ, মসজিদ-মাদ্রাসার জন্য কাজ করেছি। আমি গরীব মানুষের জন্য কাজ করেছি। এটাই আমাদের পার্টির আদর্শ।
রাজশাহী এখন উন্নয়নের মডেল হিসেবে দাঁড়িয়েছে উলেৱখ করে বাদশা বলেন, এই উন্নয়নের মডেলকে আরও পরিস্কার করতে হবে। আমরা রাজশাহীকে সব মানুষের জন্য গড়ে তুলতে চাই। এর জন্য এমন নেতা হতে হবে যে নেতৃত্বের মধ্যে নীতি, আদর্শ থাকবে। দুর্নীতি থাকবে না। মানুষের জন্য ভালোবাসা থাকবে। রাজশাহীর জন্য ভালোবাসা থাকবে। রাজশাহীর উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে হলে এমন দুর্নীতিমুক্ত নেতৃত্ব প্রয়োজন।
তিনি বলেন, রাজশাহীতে শিল্প ছাড়া কর্মসংস্থান হবে না। কর্মসংস্থান ছাড়া উন্নয়ন হবে না। এ জন্য রাজশাহীতে নতুন শিল্পাঞ্চল হচ্ছে। সরকার সেই শিল্পাঞ্চল গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বাস্তবায়ন শুর্ব হয়েছে। আমি সংসদ সদস্য হিসেবে রাজশাহীর উন্নয়নের প্রতিটি ৰেত্রে আমার দায়িত্ববোধের পরিচয় দেয়ার চেষ্টা করেছি। রাজশাহীতে আইটি ভিলেজ হচ্ছে। সেখানে ১৪ থেকে ২০ হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হবে। তার কাজ শুর্ব হয়ে গেছে। এটি দৃশ্যমান। আজকে সেই দিকে আমাদের তাকাতে হবে।
রাজশাহী সদর আসনের এই সংসদ সদস্য বলেন, তিনি যখন সংসদে কথা বলেন তখন রাজশাহীর রেশম কারখানা চালু করার দাবি তুলে ধরেন। তিনি আবারও দাবি তুলেছেন, আংশিকভাবে হলেও রেশম কারখানা চালু করা হোক। সেটা চালু করা হবে বলে তিনি আশা করছেন। এছাড়া স্থানীয় যেসব সমস্যা আছে সেগুলো সমাধানের আশ্বাস দেন তিনি।
জনসভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মহানগর মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি লিয়াকত আলী লিকু, সাধারণ সম্পাদক দেবাশীষ প্রামাণিক দেবু, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট এন্তাজুল হক বাবু, আবুল কালাম আজাদ ও মহানগর সদস্য নাজমুল করিম অপু। ১৮ নম্বর ওয়ার্ড সম্পাদক বেলাল হোসেনের সভাপতিত্বে জনসভায় স্বাগত বক্তব্য দেন যুবমৈত্রীর ওই ওয়ার্ডের সভাপতি মিন্টু চৌধুরী।
অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য আবু সাইদ, আব্দুর রাজ্জাক, মহানগর কমিটির সদস্য মনির উদ্দিন পান্না, মনির্বজ্জামান মনির, শাহমখদুম থানা ওয়ার্কার্স পার্টির সম্পাদক মিজানুর রহমান টুকু, যুবমৈত্রী নেতা শাহীন শেখ প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন ১৯ নম্বর ওয়ার্ড ওয়ার্কার্স পার্টির সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য ইকতিয়ার উদ্দিন জাহিদ।

Leave a Reply