স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীর পবা উপজেলায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ হাসিবুল ইসলাম ঘোষ (৩৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে কর্ণহার থানার আফিনেপালপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তি জেলার দামকুড়া থানার সোনাইকান্দী গ্রামের আফতাব হোসেন পচুর ছেলে।
র‌্যাব বলছে, নিহত হাসিবুল জেলার একজন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন। তার বির্বদ্ধে বিভিন্ন থানায় সাতটি মামলা রয়েছে। বন্দুকযুদ্ধের পর ঘটনাস’ল থেকে ৭৮ বোতল ফেনসিডিল এবং ম্যাগজিন ও দুই রাউন্ড গুলিসহ একটি পিস্তল জব্দ করা হয়েছে। পাওয়া গেছে গুলির একটি খোসাও।
র‌্যাব-৫ এর কোম্পানী অধিনায়ক মেজর এএম আশরাফুল ইসলাম জানান, রাতে আফিনেপালপাড়া গ্রামে র‌্যাবের একটি দল টহলে যায়। এ সময় রাস্তার পাশে একটি বাগানে কয়েকজন ব্যক্তির আনাগোনা দেখতে পেয়ে দলটি সেদিকে এগিয়ে যায়। তখন ওই ব্যক্তিরা দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে। র‌্যাব তাদের আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেয়। কিন’ আত্মসমর্পণ না করে তারা র‌্যাবকে লৰ্য করে গুলি ছোড়ে।
আত্মরৰায় র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। প্রায় পাঁচ মিনিট গোলাগুলির পর সবাই পালিয়ে গেলেও হাসিবুল ইসলামকে গুলিবিদ্ধ অবস’ায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। তখন র‌্যাব সদস্যরা তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক হাসিবুলকে মৃত ঘোষণা করেন।
মেজর আশরাফুল জানান, এ ঘটনায় কর্ণহার থানায় তিনটি মামলা করা হয়েছে। মামলাগুলোর একটি র‌্যাবের ওপর হামলা, একটি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ এবং অপরটি অস্ত্র ও বিস্ফোরকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে। এসব মামলায় গোলাগুলির সময় পালিয়ে যাওয়া অজ্ঞাত তিন-চারজনকে আসামি করা হয়েছে।