বিচারপতির বাংলোয় ধরা পড়লো অজগর

05/09/2017 1:07 am0 commentsViews: 41

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীর জেলা ও দায়রা জজ মুহম্মদ মাহবুব-উল হকের বাংলো থেকে বিরাট এক অজগর সাপ ধরা হয়েছে। গতকাল সোমবার রাত ১১টার দিকে বাংলোর ভেতরের একটি আখখেত থেকে শহীদ এএইচএম কামার্বজ্জামান কেন্দ্রীয় উদ্যান ও চিড়িয়াখানার কর্মকর্তারা সাপটি ধরেন।
এর আগে ২০১৫ সালের এপ্রিলে এই চিড়িয়াখানা থেকেই একটি অজগর সাপ উধাও হয়ে গিয়েছিল। তখন অনেক খুঁজেও সাপটির সন্ধান মেলেনি। দেড় বছর পর চিড়িয়াখানার সামনেই বিচারপতির বাংলোর ভেতরে একটি অজগর পাওয়া গেল। চিড়িয়াখানার কর্মকর্তারা দাবি করছেন, এটিই সেই হারিয়ে যাওয়া অজগর।
চিড়িয়াখানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ড. ফরহাদ উদ্দিন জানান, গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বিচারপতির দেহরৰী আরিফ হোসেন তাদের কাছে গিয়ে জানান, তারা বাংলোর ভেতর ফাঁকা জায়গায় একটি বিরাট আকারের সাপ দেখেছেন। সাপটি একটি আখখেতের ভেতর ঢুকেছে।
এরপর চিড়িয়াখানার একটি অভিজ্ঞ দল বাংলোয় ছুটে যান। অনেক খোঁজাখুঁজির পর রাত ১১টার দিকে সাপটি ধরা হয়। খবর পেয়ে ছুটে আসেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। এরপর রাত সাড়ে ১১টার দিকে অজগরটিকে চিড়িয়াখানার একটি খাচায় ছাড়া হয়।
ড. ফরহাদ উদ্দিন বলেন, যে সাপটি ধরা পড়েছে সেটি লম্বায় ১৯ ফুট। ওজন ১৬ কেজি। তারা পরীৰা-নীরিৰা করে নিশ্চিত হয়েছেন, এই সাপটিই দেড় বছর আগে খাচা থেকে পালিয়েছিল। বিচারপতির বাংলোর ভেতরে প্রচুর জঙ্গল থাকায় সেখানে এটি ইঁদুরসহ অন্যান্য প্রাণী খেয়ে বেঁচেছিল বলে তাদের ধারণা।
তিনি আরও জানান, দেড় বছর আগে বাচ্চা অবস্থায় চিড়িয়াখানা থেকে যে অজগরটি পালিয়েছিল সেটি ৭ থেকে ৮ ফুট লম্বা ছিল। তখন সাপটির ওজনও ছিল কম। ওই সাপটি পালানোর কিছুদিন আগেই চাঁপাইনবাবগঞ্জের একটি ভারতীয় সীমান্তে ধরা পড়েছিল। সাপটি ভারত থেকেই এদেশে এসেছিল।

Leave a Reply