পবিত্র ঈদুল আযহা উদযাপিত

05/09/2017 1:08 am0 commentsViews: 18

স্টাফ রিপোর্টার: মহান ত্যাগের মহিমায় উদ্ভাসিত হয়ে এবং যথাযোগ্য মর্যাদা ও আনন্দ মুখর পরিবেশে মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনার মধ্য দিয়ে সারাদেশে পবিত্র ঈদুল আযহা উদযাপিত হয়েছে। মহান আলৱাহর সন্তুষ্টি লাভের উদ্দেশ্যে পশু কোরবানির মধ্য দিয়ে মুসলিমরা তাদের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আযহা উদযাপন করে।
হযরত ইবরাহীম (আ.)-এর আত্মত্যাগ ও অনুপম আদর্শের প্রতীকী নিদর্শন হিসেবে প্রায় সাড়ে ৪ হাজার বছর আগে থেকে শুর্ব হয় কোরবানির এই প্রচলন। আলৱাহ রাব্বুল আলামীনের নির্দেশে হজরত ইবরাহীম (আ.) তার প্রাণপ্রিয় পুত্র হজরত ইসমাইল (আ.)-কে কোরবানি করতে উদ্যত হয়েছিলেন। ওই অনন্য ঘটনার স্মরণেই ঈদুল আযহায় পশু কোরবানির এ রেওয়াজ চালু হয়। মহান আলৱাহপাকের প্রতি আনুগত্য প্রকাশ, তার সন্তুষ্টি অর্জন এবং তারই রাস্তায় সর্বোচ্চ আত্মত্যাগের এ ঐতিহাসিক ঘটনার ধারাবাহিকতায় মুসলিম বিশ্বে কোরবানি ও ঈদুল আযহা উদযাপিত হয়ে আসছে।
মুসলিম সমপ্রদায়ের অন্যতম প্রধান এ ধর্মীয় উৎসব উপলৰে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশবাসীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে পৃথক বাণী দেন। পত্রিকাগুলো বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ করে। বাংলাদেশ টেলিভিশন, বাংলাদেশ বেতার এবং বেসরকারি টেলিভিশন নানান অনুষ্ঠানমালা প্রচার করছে।
ঈদের দিন সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্বশাসিত ও বেসরকারি ভবনসমূহে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। মহানগর এলাকার গুর্বত্বপূর্ণ স্থান ও সড়ক দ্বীপসূমহে জাতীয় পতাকা ও ঈদ মোবারক লেখা ব্যানার ও পতাকা দ্বারা সজ্জিত করা হয়।
রাজশাহী মহানগর শাহ্‌ মখদুম (র:) কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে সকাল আটটায় ঈদ-উল-আযহার বৃহত্তম প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিশাল এই ঈদ জামাতের ইমামতি করেছেন, হযরত শাহ্‌ মখদুম (রহ.) জামেয়া ইসলামীয়া মাদ্রাসার অধ্যৰ মুফতি মাওলানা মো: শাহাদত আলী। বিশাল জামায়াতে নামাজ আদায় করেন রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা, বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা সাবেক সংসদ সদস্য ও মেয়র মিজানুর রহমান মিনু, সিটি মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ও জেলা প্রশাসক হেলাল মাহমুদ শরীফ। কাদিরগঞ্জ হাজী লাল মুহাম্মদ ঈদগাহ মাঠে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রিয় কমিটির সদস্য নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়র্বজ্জামান লিটন।
ঈদ উল আযহার দ্বিতীয় বৃহত্তম জামাত মুহাম্মদপুর টিকাপাড়া ঈদগাহ ময়দানে না হয়ে মীরের চক জামে সমজিদে সকাল সাড়ে সাতটায় অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া অন্যান্য স্থানে সংশিৱষ্ট ব্যবস্থাপনা কর্তৃপৰের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।
মহানগরীতে প্রথম ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে সকাল ৭টায় রাজশাহী প্রযুক্তি এবং প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে। এছাড়া সকাল সাড়ে ৭টায় নওদাপাড়া আমচত্ত্বর আহলে হাদীস মাঠে। এরপর সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত বিভিন্ন পয়েন্টে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।
এদিন সুবিধামত সময়ে হাসপাতাল, কারাগার, এতিমখানা, শিশু কেন্দ্র, শিশু পরিবার, শিশু পলৱী, সরকারি শিশু সদন, ছোটমনি নিবাস, সেফ হোম এবং অনুরূপ প্রতিষ্ঠানসমূহে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হয়েছে।
ঈদের পরের দিন সন্ধ্যায় রাজশাহী শহরের আলুপট্টি, লক্ষ্মীপুর মোড় ও সাহেব বাজারের জিরো পয়েন্টে পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উদযাপনের লৰ্যে গণযোগাযোগ অধিদপ্তর প্রমাণ্যচিত্র প্রদর্শন করে। রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ঈদ-উল-আযহার পৃথক কর্মসূচি পালন করে।

Leave a Reply