গুয়ামে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা রম্নখবে জাপান

12/08/2017 1:04 am0 commentsViews: 17

এফএনএস আনৱর্জাতিক ডেস্ক: যুক্ত-রাষ্ট্রের গুয়ামে উত্তর কোরিয়ার সম্ভাব্য ক্ষেপণাস্ত্র হামলা রম্নখবে জাপান। বৃহস্পতিবার বিকালে দেশটির সংসদীয় কমিটিকে একথা জানান জাপানের নবনিযুক্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী। আর তা কার্যকর করতে দেশটির বিভিন্ন পয়েন্টে জাপানি সেনারা বেশ কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র ভূপাতিকরণ যন্ত্রও স’াপন করেছে। বুধবার উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম কেসি-এনএ’র প্রতিবেদনে অগাস্টের মাঝা-মাঝি সময়ে মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র-নিয়ন্ত্রিত প্রশানৱ মহাসাগরীয় দ্বীপ গুয়ামের কাছে চারটি ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার ঘোষণা দেওয়া হয়। দেশটির প্রেসিডেন্ট কিম জং উনের অনুমতি মিললেই ক্ষেপণাস্ত্রগুলো জাপানের ওপর দিয়ে উড়ে গিয়ে গুয়াম দ্বীপ থেকে প্রায় ৩০ কিলোমিটার দূরে সাগরে গিয়ে পড়বে বলে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়। এরপরই যুক্তরাষ্ট্র পাল্টা জবাব দেওয়ার মধ্যেই বৃহস্পতিবার বিকেলে জরম্নরি ভিত্তিতে জাপানের সংসদে এক আলোচনা থেকে উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র ভূপাতিত করার জন্য জাপানি সেনাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়। জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইসুনরি ওনোদেরা সাংবাদিকদের বলেন, পিংয়ংয়ের ছুড়ে দেওয়া ক্ষেপণাস্ত্র আমাদের সেনারা যেকোন মূল্যে প্রতিহত করবে। সেটি জাপানে আঘাত করম্নক বা না করম্নক। সেনা-দের ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের সেনাদের সহায়তা করার নিদের্শ দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে অস্ত্র ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। ২০১৪ সালের জুলাইয়ে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে সংসদে তিনশর্তে জাপানি সেনাদের অস্ত্র ব্যবহারের অনুমতি দেন। যেগুলোর মধ্যে অন্যতম হল, যদি কখনও জাপান বা অন্য কোন বন্ধুপ্রতীম রাষ্ট্র অন্য কোন রাষ্ট্রর হুমকির মুখামুখি হয়, তাহলে জাপানি সেনারা সমরাস্ত্র ব্যবহার করবে। ২০১৫ সালে শেষদিকে তা ‘নিরাপত্তা বিল’ হিসেবে পাশ হয়। এরপরই জাপান মূলত যুক্তরাষ্ট্রে সেনাদের সঙ্গে নিবিড়ভাবে সম্পর্ক তৈরি করে যাচ্ছে। প্রতিরক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, মার্কিন নৌ শিবিরে আক্রমণের যে হুমকি উত্তর কোরিয়া দিয়েছে তা জাপানের সার্বভৌমত্বের জন্য হুমকি স্বরম্নপ। উত্তর কোরিয়া যদি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে তাহলে তা জাপানের হিরোশিমা, কচি ও শিমানে প্রদেশের উপর দিয়ে গুয়ামে পড়বে। তাই যেকোন মূল্যে উত্তরের জবাব দেয়া হবে। মন্ত্রী পরিষদের মূখ্য সচিব ইয়োশিহিদা সুগা বলেন, আমরা উত্তর কোরিয়ার অবস’ান পর্যবেক্ষণ করছি। নিরাপত্তার বিঘ্ন ঘটে এমন কোনও কিছুই ছাড় দেয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। এর আগে কেসি-এনএ’র প্রতিবেদনে উত্তর কোরিয়ার সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল কিম রাক গিয়মের উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়, “কেপিএ-র (কোরিয়ান পিপলস আর্মি) উৎক্ষেপণ করা হওয়াসং-১২ ক্ষেপণাস্ত্র জাপানের শিমানে, হিরো-শিমা ও কোচি অঞ্চলের আকাশ অতিক্রম করে যাবে। এগুলো ১,০৬৫ সেকেন্ডে ৩,৩৫৬ দশমিক সাত কিলোমিটার উড়ে গুয়ামের ৩০-৪০ কিলোমিটার দূরে পানিতে গিয়ে পড়বে।” হওয়াসং উত্তর কোরিয়ার তৈরি মাঝারি এবং দীর্ঘ পালস্নার ক্ষেপণাস্ত্রের নাম। বিবৃতিতে প্রেসি-ডেন্ট ট্রাম্পের ‘আগুন ও উন্মত্ততার’ হুমকিকে ‘নির্বোধের প্রলাপ’ বলে উলেস্নখ করা হয়েছে। এই কথার লড়াইয়ের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি-রক্ষামন্ত্রী ম্যাটিস বুধবার এক বিবৃতিতে পিয়ংইয়ংকে তার অস্ত্র কর্মসূচি স’গিত করার জন্য জোরালো ভাষায় আহ্বান জানিয়েছেন।

Leave a Reply