ভাগ্নে হত্যায় মামার মৃত্যুদ- অপরজনের যাবজ্জীবন

17/07/2017 1:08 am0 commentsViews: 52

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীর চাঞ্চল্যকর শ্রমিক নেতা আল আমিন হত্যা মামলার রায়ে সৎ মামার মৃত্যুদ- দিয়েছেন আদালত। এ মামলার অপর আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদ- দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে হত্যা মামলার প্রধান আসামি আল আমিনের সৎ মামা আব্দুল মালেককে মৃত্যুদ-ে দ-িত করা হয়েছে। আর সহযোগী অপর আসামি জাহাঙ্গীর আলমকে যাবজ্জীবন কারদ-সহ ২০ হাজার টাকা অর্থদ- দেয়া হয়েছে।
গতকাল রোববার রাজশাহী দ্র্বত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক শিরিন কবিতা আকতার এক জনাকীর্ণ আদালতে এই রায় ঘোষণা করেন। এ সময় আসামিরা আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন। রায় ঘোষণার পর তাদের কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। মৃত্যুদ- প্রাপ্ত আসামি আবদুল মালেক নগরীর রাজপাড়া থানাধীন মোলৱ্লাপাড়া এলাকার মৃত এসাহাক আলী ওরফে সাহু ডাকাতের পুত্র এবং যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি জাহাঙ্গীর আলম পবা থানাধীন সরিষাকুড়ির শামসুজ্জোহা ওরফে ভুদুর পুত্র। তারাও আবার সম্পর্কে মামাতো-ফুপাতো ভাই।
মামলার সংৰিপ্ত বিবরণে জানা যায়, ২০১৩ সালের ৫ আগস্ট রাত সোয়া ৯টার দিকে আল আমিনকে মোলৱ্লাপাড়া কড়াইতলা মসজিদ থেকে ডেকে নিয়ে ছুরিঘাত করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় আল আমিনের বাবা আব্দুল ওহাব বাদী হয়ে রাজপাড়া থানায় মামলা করে। মামলায় এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী আব্দুল মালেক তার ভাই তারেক এবং জাহাঙ্গীরকে আসামি করা হয়। তদন্ত শেষে তারেকের নাম বাদ দিয়ে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে রাজপাড়া থানা পুলিশ। মামলাটি পরে নিষ্পত্তির জন্য দ্র্বত বিচার ট্রাইব্যুনালে আসে।
আদালতে মামলা চলাকালে মোট ১৫ জনের সাৰ্য গ্রহণ করা হয়। রাষ্ট্রপৰ আসামিদের বির্বদ্ধে সন্দেহাতীতভাবে অভিযোগ প্রমাণ করতে সৰম হওয়ায় এ রায় ঘোষণা করা হয়।
রাষ্ট্রপৰে মামলাটি পরিচালনা করেন দ্র্বত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পিপি অ্যাডভোকেট এন্তাজুল হক বাবু। আসামি পৰে ছিলেন অ্যাভোকেট হামিদুল হক ও একরামুল হক।

Leave a Reply