স্টাফ রিপোর্টার: নগরীতে জুয়াড়ী সিন্ডিকেটের দু’দফা হামলায় একজন গুলিবিদ্ধ ও অপরজনের মুখ ঝলসে গেছে। আহতদেরকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ একটি বিদেশী পিস্তল ও এক রাউন্ড গুলিসহ মোট ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। স’ানীয় একটি পত্রিকায় জুয়ার বোর্ডের সংবাদ প্রকাশ করাকে কেন্দ্র করে গতকাল বৃহস্পতিবার এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে।
আটককৃতরা হচ্ছে, সপুরা এলাকার সবুজ (২৪), একই এলাকার মৃত মোজাফ্‌ফরের ছেলে জুয়া বোর্ডের মূল হোতা তারেক (৩০), আসাম কলোনী এলাকার আব্দুর রশিদের ছেলে ফরিদপুরা রিপন (৪০), লক্ষ্মীপুর এলাকার মৃত আনসার আলীর ছেলে শাওন হোসেন (৩২) ও নওদপাড়ার বাবু (৩২)।
প্রত্যৰদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গতকাল দুপুর ১২ টার দিকে রাণীবাজার মোল্লা মোটরসের সামনে মোটরসাইকেল মেরামত করাচ্ছিলেন দৈনিক উপাচার পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক নূরে ইসলাম মিলন। এ সময় জুয়াড়ী সিন্ডিকেটের ৪ জন প্রকাশ্যে পিস্তল উঁচিয়ে মিলনের উপর হামলা চালায়। কিন’ মিলনের সঙ্গে থাকা আত্মীয় উপাচার পত্রিকার টাইপিস্ট অন্তর ও বন্ধু তুষার পিস্তলধারী সবুজকে জাপটে ধরে এবং উভয়ের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। এতে করে সবুজ তার হাতে থাকা পিস্তল দিয়ে তিন রাউন্ড গুলি চালায় এবং একটি গুলি অন্তরের নাভির নিচ বরাবর লাগলে সে রাস্তায় লুটিয়ে পড়ে। পালানোর সময় উপসি’ত লোকজনের সহযোগিতায় পুলিশ ঘটনাস’ল থেকে পিস্তল ও এক রাউন্ড গুলিসহ সবুজ ও অপর দু’জনকে আটক করে। আহত অন্তরকে রামেক হাসপাতালের ৪ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে।
কর্তব্যরত চিকিৎসক আশিক ইকবাল বলেন, এ ধরণের গুলিবিদ্ধের ঘটনায় রোগী সম্পর্কে তাৎৰণিক কিছু বলা যাচ্ছে না। আমরা চেষ্টা করছি।
এর আগে সকালে জুয়ার বোর্ডের মূলহোতা তারেক ও তার সহযোগীরা মিলনের বাড়িতে গিয়ে হত্যার হুমকি দেয়। সেখানে মিলনকে না পেয়ে তারা রাণীবাজারে এসে মিলনের উপর হামলা চালায়। এ সময় স’ানীয় লোকজন তাদেরকে ধরে গণধোলাই দিয়ে তারেকসহ তিনজনকে পুলিশে সোপর্দ করেন।
এদিকে, আহত মোয়াজ্জেম হোসেন লিটন বলেন, সপুরা স্টেডিয়াম এলাকায় লাখ লাখ টাকার জুয়ার বোর্ড চালায় তারেক। এ ব্যাপারে তিনি উপাচার পত্রিকায় তথ্য সরবরাহ করেন। গত বুধবারে উক্ত জুয়ার বোর্ডের খবর প্রকাশ হয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গতকাল সকাল সাড়ে ৯টার দিকে তাকে ডেকে নিয়ে গিয়ে সপুরা পানি উন্নয়ন বোর্ডের সামনে তারেকের নের্তৃত্বে তার সহযোগীরা বেধড়ক মারপিট করে এবং তার মুখে গরম পানি ঢেলে ঝলসে দেয়। এরপর তাকে রামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়।
গুলিবিদ্ধ যুবক মান্দা দেলুয়া বাড়ি এলাকার গোলাম রাব্বানীর ছেলে ও নগরীর সাগরপাড়া বটতলা এলাকার দৈনিক উপাচার পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক নূরে ইসলাম মিলনের আত্মীয় অন্তর (২৪), অপরজন হামলাকারীদের গরম পানিতে মুখ ঝলসে যাওয়া যুবক সপুরা এলাকার এলাহী বক্সের ছেলে আহত মোয়াজ্জেম হোসেন লিটন (৩২)। এছাড়াও হামলার ঘটনায় ওই সময় রেশমপট্টি এলাকার মৃত আহম্মেদের ছেলে তুষার (৪০) আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। আহত তুষার প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।
এ ব্যাপারে বোয়ালিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আমান উলৱ্লাহ বলেন, এ ঘটনায় ৫ জনকে আটক করা হয়েছে। এরমধ্যে সবুজকে ঘটনাস’ল থেকে একটি বিদেশী পিস্তল ও এক রাউ- গুলিসহ হাতে-নাতে আটক করা হয়। থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। এছাড়াও ঘটনাস’লে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।