প্রাথমিক শিৰা বিষয়ে সিদ্ধানৱ ইতিবাচক

19/05/2017 1:04 am0 commentsViews: 12

জাতীয় শিৰা নীতিতে প্রাথমিক শিৰা আপাতত অষ্টম শ্রেণি পর্যনৱ হচ্ছে না। আগের মতোই পঞ্চম শ্রেণিতে প্রাথমিক শিৰা সমাপনী পরীৰা এবং অষ্টম শ্রেণিতে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট পরীৰা চলতে থাকবে। চলতি বছরের শুরুর দিকে প্রাথমিক শিৰার মেয়াদ অষ্টম শ্রেণি পর্যনৱ উন্নীত করার প্রসৱাব দিয়েছিল প্রাথমিক ও গণশিৰা মন্ত্রণালয়। ২০১০ সালে প্রণীত জাতীয় শিৰা নীতিতেও বলা হয়েছে, প্রাথমিক শিৰার মেয়াদ পাঁচ বছর থেকে বৃদ্ধি করে আট বছর অর্থাৎ অষ্টম শ্রেণি পর্যনৱ সমপ্রসারণ করা হবে। এটি বাসৱবায়নে দুটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো অবকাঠামোগত আবশ্যকতা মেটানো এবং প্রয়োজনীয়সংখ্যক উপযুক্ত শিৰকের ব্যবস’া করা। শিৰানীতি প্রণয়ন করতে গিয়ে বিশেষজ্ঞরা অবকাঠামোগত সমস্যার বিষয়ে গুরুত্ব দিয়েছিলেন।
আমাদের দেশের বেশির ভাগ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নেই। যেসব রেজিস্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ হয়েছে, সেগুলোর অবস’া আরও খারাপ। এছাড়া রয়েছে দৰ শিৰকের অভাব। দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মানসম্মত শিৰকের অভাব রয়েছে। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে আধুনিক পাঠ্যক্রম বুঝে উঠতে না পারার সমস্যা। দেশে যখন প্রথম বারের মতো সৃজনশীল পদ্ধতি প্রবর্তন করা হয় তখন ধারণা করা হয়েছিল, বিশ্বমানের শিৰা পদ্ধতির সঙেগ পরিচিত হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। এ বিষয়ে দেশ জুড়ে শিৰকদের প্রশিৰণের ব্যবস’া করা হলেও এখনো সৃজনশীল পদ্ধতির সঙেগ অনেক শিৰক খাপ খাইয়ে নিতে পারেননি। ফলে দেখা যায় পিইসি, জেএসসি পরীৰাসহ পাবলিক পরীৰায় গাইড বই থেকে হুবহু প্রশ্ন তুলে দেয়া হয়। শ্রেণিকৰের পাঠদানও অনেক শিৰাপ্রতিষ্ঠানে গাইডবইনির্ভর। নোট-গাইড নির্ভরতা কমাতে যে সৃজনশীল পদ্ধতি প্রবর্তন করা হয়েছিল, তা এখন অনেক বেশি করে গাইডনির্ভর হয়ে পড়েছে। ফলে শিৰার মান নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।
আধুনিক বিশ্বের সঙেগ তাল মিলিয়ে আমাদের শিৰার মান উন্নীত করতে হলে দেশের শিৰাব্যবস’ায় আমূল পরিবর্তন দরকার। প্রাথমিক শিৰা অষ্টম শ্রেণি পর্যনৱ উন্নীত করা হয়তো তারই একটি ধাপ। কিনৱু প্রসৱুতি সম্পন্ন না করে এ সিদ্ধানৱ নিলে তা হিতে বিপরীত হতো। সবার আগে প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর অবকাঠামো উন্নয়ন করতে হবে। অষ্টম শ্রেণি পর্যনৱ প্রাথমিক শিৰা উন্নীত করা হলে যে মানের শিৰক প্রয়োজন হবে, তারও অভাব রয়েছে। শিৰকদের মানোন্নয়নেও বড় পরিকল্পনা নিয়ে এগোতে হবে। আর সে কারণে এখনই প্রাথমিক শিৰা অষ্টম শ্রেণি পর্যনৱ উন্নীত না করার যে সিদ্ধানৱ নেয়া হয়েছে, তা আমরা সময়োপযোগী বলে মনে করি। আগে অবকাঠামো তৈরি হোক, মানসম্পন্ন শিৰক নিশ্চিত করে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রশাসন ও ব্যবস’াপনা উন্নয়ন করা হোক, তারপর এ বিষয়ে সিদ্ধানৱ নিতে হবে বলে আমরা মনে করি।

Leave a Reply