ফের রাবি ভিসি অধ্যাপক আবদুস সোবহান

08/05/2017 1:06 am0 commentsViews: 134

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক : সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২৩তম ভিসি হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন ফলিত পদার্থ বিজ্ঞান ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আবদুস সোবহান। রোববার বিকেল ৫টার দিকে শিৰা মন্ত্রণালয় থেকে প্রজ্ঞাপন জারির পর পৌণে ৬টার দিকে যোগদান করেন তিনি। বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর ও রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের আদেশক্রমে সহকারী সচিব আবদুস সাত্তার মিয়া প্রজ্ঞাপনে স্বাৰর করেন।
মন্ত্রণালয় থেকে জারিকৃত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ‘মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় আইন ১৯৭৩ এর ১১ (২) ধারা অনুযায়ী এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত পদার্থ বিজ্ঞান ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক আব্দুস সোবহানকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি পদে নিয়োগ প্রদান করতে সম্মতি জ্ঞাপন করেছেন।’
প্রজ্ঞাপনে নিয়োগের শর্ত হিসেবে বলা হয়েছে, ভিসি হিসেবে তাঁর নিয়োগের মেয়াদ হবে চার বছর। তবে মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর প্রয়োজন মনে করলে এর পূর্বেই এ নিয়োগাদেশ বাতিল করতে পারবেন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে সার্বৰণিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে অবস’ান করবেন। এ নিয়োগাদেশ তাঁর যোগদানের তারিখ হতে কার্যকর হবে।
দীর্ঘ ৪৮ দিন শূন্য থাকার পর ভিসি পেলেও প্রো-ভিসি পদে কাউকে নিয়োগ দেয়া হয়নি। বিগত মেয়াদগুলোতে ভিসি ও প্রো-ভিসি পদে একসঙ্গে নিয়োগ দেয়া হয়েছিল। প্রথম মেয়াদে অধ্যাপক সোবহান ২০০৯ সালের ২৬ ফেব্র্বয়ারি থেকে ২০১৩ সালের ২৫ ফেব্র্বয়ারি পর্যন্ত পূর্ণ মেয়াদে দায়িত্ব পালন করেন।
এদিকে শিৰা মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনের ফ্যাক্স রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌঁছালে বিকেল পৌণে ৬টার দিকে প্রশাসন ভবনে এসে দায়িত্বগ্রহণ করেন অধ্যাপক সোবহান। বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে তিনি প্রশাসন ভবনের সামনে পৌঁছালে সেখানে আগে থেকে ফুলের তোড়া নিয়ে উপসি’ত শিৰকবৃন্দ ও স’ানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা সেৱাগান দিতে থাকে। পরে তিনি ভিসি দফতের গিয়ে দায়িত্বগ্রহণ করেন। এ সময় রাবির ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার অধ্যাপক মু. এন্তাজুল হক, প্রক্টর অধ্যাপক ড. মজিবুল হক আজাদ খানসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের ২০/২৫ জন শিৰক উপসি’ত ছিলেন। তবে স’ানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের উপসি’তি ছিল চোখে পড়ার মত। দায়িত্বগ্রহণকালে অধ্যাপক সোবহান ভিসি হিসেবে নিয়োগ দেওয়ায় রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। ধন্যবাদ জানান রাজশাহী মহানগর, জেলা ও স’ানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদেরও। তাৎৰণিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, ‘কারও প্রতি আমার হিংসা-বিদ্বেষ নেই। বিশ্ববিদ্যালয় সবার, শিৰক-শিৰার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সহযোগিতা পেলে আমি নিশ্চিত সুচার্বভাবে এই বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনা করতে পারব।’
দায়িত্বভার গ্রহণের পর তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও এক মিনিট নীরবতা পালনসহ মোনাজাত করেন। তিনি ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানের শহীদ ড. শামসুজ্জোহার মাজার ও শহীদ মিনারেও পুষ্পস্তবক অর্পণসহ মোনাজাত করেন। পরে তিনি অন্যতম শহীদ জাতীয় নেতা এ এইচ এম কামার্বজ্জামানের কবরেও পুষ্পস্তবক অর্পণ ও মোনাজাত করেন। এ সময় রাবি শিৰক, কর্মকতা ও কর্মচারীবৃন্দ উপসি’ত ছিলেন।
গত ১৯ মার্চ বিদায়ী ভিসি অধ্যাপক ড. মুহ্‌ম্মদ মিজানউদ্দিন ও প্রো-ভিসি অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহানের মেয়াদকাল শেষ হয়। এর পর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শীর্ষ দুই পদ শূন্য ছিল। সবশেষ ৪ মে কোষাধ্যৰ পদও শূন্য হয়ে যায়।

Leave a Reply