উজানের ঢলে দিশেহারা কৃষক

২৭/০৪/২০১৭ ১:০৪ পূর্বাহ্ণ০ commentsViews: 17

বর্ষার এখনও বেশ দেরি। কিন’ আগাম বৃষ্টিপাতের সঙ্গে উজান থেকে নেমে আসা পানির ঢল কৃষকের সর্বনাশের কারণ হয়ে উঠেছে। সীমানেৱর ওপারে হিমালয়ের পাদদেশে অতিরিক্ত বৃষ্টিপাতে সৃষ্ট পাহাড়ি ঢলে হাওরে মহাবিপর্যয় ঘটিয়েছে। তার ধাক্কা সামলানোর আগেই দেশের বিভিন্ন যৌথ নদীর ঢলে খাল-বিল ভাসিয়ে খেতের পাকা ধানও ডুবতে বসেছে। এসব নদ-নদী থেকে উজানে পানি প্রত্যাহার যেমন আমাদের শুকিয়ে মারছে তেমনি পাহাড়ি ঢলের মুখে বাঁধের মুখ খুলে দিয়ে ডুবিয়েও মারা হচ্ছে আমাদের।
গতকাল সোনালী সংবাদে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমসৱাপুরে ভারতীয় অংশে সস্নুইস গেট খুলে দেয়ায় তলিয়ে গেছে ২ হাজার বিঘা জমির পাকা ধান। নওগাঁর সাপাহার উপজেলার ওপারে পশ্চিমবঙ্গের উত্তর দিনাজপুরে পুনর্ভবা নদীর ওপর নির্মিত সস্নুইচ গেট খুলে দেয়ায় পাশের গোমসৱাপুরে ফসলের বিসৱীর্ণ মাঠ ডুবে গেছে। চোখের সামনে রাতারাতি খেত ডুবে যাওয়ায় দিশেহারা কৃষক পাকা ধান কেটে তোলারও সুযোগ পাচ্ছে না। রাধানগর ইউনিয়নের কয়েকটি এলাকার ২ হাজার বিঘা জমির ধান ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তলিয়ে গেছে। এমন উদ্বেগজনক খবর আসছে চলনবিল এলাকা থেকেও। উজানের অসময়ের ঢল নদ-নদী দিয়ে প্রবল বেগে খাল-বিলে এসে পড়ায় অপ্রস’ত কৃষকের চোখের সামনে সর্বনাশ হলেও ঠেকানো যাচ্ছে না। এমন হঠাৎ বিপদ বোরো ধানের বাম্পার ফলনের স্বপ্নকে রাতারাতি কৃষকের দুঃস্বপ্নে পরিণত হয়েছে।
প্রতিবেশি ভারতকে আমরা বন্ধু রাষ্ট্র মনে করি। একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধকালে তাদের ভূমিকা ছিল বন্ধুর মতই। কিন’ উজানের দেশ হিসেবে ভাটির বাংলাদেশের স্বার্থ উপেৰা করে যৌথ নদ-নদীগুলোর ওপর একতরফা বাঁধ নির্মাণের মাধ্যমে স্বাভাবিক পানি প্রবাহ নিয়ন্ত্রণে তাদের বর্তমান ভূমিকা মোটেই বন্ধুপ্রতীম বলা যায় না। শুষ্ক মৌসুমে পানি প্রত্যাহার করে এবং বর্ষায় অতিরিক্ত পানি ছেড়ে দেয়ার একতরফা পদৰেপ আমাদের মহাবিপর্যয়ের কারণ হয়ে উঠেছে। এর অনিবার্য প্রতিক্রিয়া জনমনে বিরূপ ধারণা না ছড়িয়ে পারে না।
বিষয়টি নিয়ে দ্বিপাৰিক ও বহুপাৰিক আলোচনায় সনেৱাষজনক সমাধানে পৌঁছা মোটেই অসম্ভব নয়। এজন্য আনৱরিকতা ও গণতান্ত্রিক দৃষ্টিভঙ্গিই যথেষ্ট। আনৱর্জাতিক বিধান অনুযায়ী যৌথ নদ-নদীর পানি ব্যবস’াপনায় সংশিস্নষ্ট সব দেশের স্বার্থরৰায় আলোচনার মাধ্যমে সিদ্ধানেৱ আসার উদাহরণ কম নেই। তাহলে কেন আমাদের বার বার বিপদের মুখে পড়তে হচ্ছে ? প্রতিবেশি দু’দেশের বন্ধুপ্রতিম দু’সরকার কেন আলোচনার মাধ্যমে নদী সমস্যার মীমাংসায় কার্যকর উদ্যোগ নিচ্ছে না সেটাই প্রশ্ন। দিশেহারা কৃষকের সর্বনাশের দায় কে নেবে?

Leave a Reply