ট্যাক্স নিয়ে সৃষ্ট বিভ্রান্তি দূর করা হবে : মেয়র

26/04/2017 1:06 am0 commentsViews: 31

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেছেন, আমার অবর্তমানে অনির্বাচিত মেয়র অস্বাভাবিক ট্যাক্স বৃদ্ধি করেছেন। যা সত্যিই মেনে নেয়ার মত নয়। পুনরায় মহামান্য হাইকোর্ট আমাকে মেয়রের দায়িত্ব প্রদান করেছেন। আপনাদের পরামর্শ নিয়েই আমি ট্যাক্স নিয়ে সৃষ্ট জনমনে বিভ্রান্তি দূর করতে চাই। হোল্ডিং ট্যাক্সের বিষয়ে সৃষ্ট সমস্যা সমাধানে সর্বস্তরের জনগণের মতামত নিয়ে হোল্ডিং ট্যাক্সের বিষয়টি সহনীয় পর্যায়ে নিয়ে আনতে চাই। এজন্য চাই আপনাদের সর্বাত্নক সহযোগিতা।
গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে নগরভবন সম্মেলন কৰে রাজশাহী চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি, রাজশাহী সড়ক পরিবহন গ্র্বপ, রাজশাহী উইমেন চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি, বেসরকারি ক্লিনিক মালিক সমিতি, পরিবেশক ব্যবসায়ী সমিতি, গোস্ত ব্যবসায়ী সমিতিসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে হোল্ডিং ট্যাক্স বিষয়ক মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি একথা বলেন।
তিনি বলেন, পুনরায় মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণের পরই মশক নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে। নগরীর সকল ড্রেনের ময়লা অপসারণ কার্যক্রম অব্যাহত আছে। গ্যাস কাটিংসহ নগরীর ছোটবড় সকল রাস্তার কাজ সংস্কার করা হবে। মহানগরীর কল্পনা হতে তালাইমারী পর্যন্ত ৭০ ফুট রাস্তার কাজ এগিয়ে চলেছে। আগামী এক বছরের মধ্যেই এ রাস্তার কাজ শেষ করা হবে। এ নগরীর উন্নয়নে ১৭৩ কোটি বরাদ্দ দেয়ায় তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পরিকল্পনামন্ত্রীসহ সংশিৱষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান। নির্মাণাধীন মার্কেটগুলোর বিদ্যমান সমস্যা সমাধানে অতি দ্র্বত পদৰেপ গ্রহণ করা হবে। সোনাদিঘি ও ভূবনমোহন পার্কের ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। আগামী কোরবানী ঈদের পূর্বেই নগরীতে কশাইখানা নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে।
মতবিনিময় সভায় রাসিকের প্যানেল মেয়র-১ ও ২৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার্বল আমিন আযব, ২২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল হামিদ সরকার টেকন, ৩০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সামাদ, চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির সভাপতি মনির্বজ্জামান মনি, সাবেক সভাপতি আবু বাক্কার আলী, মো: শামসুদ্দিন ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ফরিদ মামুদ হাসান, ক্লিনিক মালিক সমিতির সভাপতি ডা: মান্নান, শালবাগান বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম, চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক হাসেন আলী, মাসুদুর রহমান রিংকু, চেম্বারের সাবেক পরিচালক এম শরীফ, সেকেন্দার আলীসহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ রাসিকের রাজস্ব কর্মকতা আবু সালেহ নূর-ই-সাঈদ, প্রধান কর নির্ধারক মঞ্জুর্বল আলমসহ সংশিৱষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ উপসি’ত ছিলেন।

Leave a Reply