থোকায় থোকায় আমের পরিচর্যা

21/04/2017 1:03 am0 commentsViews: 10

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ব্যুরো: আমের রাজ-ধানী চাঁপাইনবাবগঞ্জের বাগানগুলোয় এখন চলছে আমের পরিচর্যা। পোকার আক্রমণ ঠেকাতে ব্যসৱ সময় পার করছেন আমচাষিরা। গত বছর ফলন ভালো হলেও, প্রশাসন আম পাড়ার সময়সীমা বেঁধে দেয়ায় ৰতিগ্রসৱ হন অধিকাংশ আমচাষি ও ব্যবসায়ীরা। তাই এ বছর আবারো আমপাড়ার সময়সীমা বেঁধে না দেয়ার দাবি জানিয়েছে বাগান মালিকরা।
জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, ভোক্তাদের কাছে বিষমুক্ত ও পরিপক্ক আম উপহার দিতে সব ধরনের প্রসৱুতি নেয়া হয়েছে। সেৰেত্রে সময়সীমা বেঁধে দেয়া হলেও আমচাষিরা যাতে ৰতিগ্রসৱ না হয় সেদিকে চিনৱা-ভাবনা করা হচ্ছে। আর আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে এবারও আমের ভালো ফলন হবে এমনটাই বলছেন কৃষি বিভাগ।
চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম বাগান-গুলোতে এখন ঝুলছে নানা জাতের বাহারি সব আম। মাস দেড়েক বাদেই বাজারে উঠবে এসব আম।  এবার ভাল মুকুল ও পর্যাপ্ত গুটি আসলেও, দিনের বেলায় প্রচ- গরম এবং রাতে আবহাওয়া ঠা-া হওয়ায় মহা ও পোকার আক্রমণে আমের ভাল ফলন নিয়ে দুশ্চিনৱায় রয়েছেন আমচাষিরা। আমবাগান মালিক হাসান আল সাদি পলাশ জানান, ভাল ফলনের আশায়,  আম ঝরে পড়া রোধে ও পোকার আক্রমণ ঠেকাতে কৃষি বিভাগের পরামর্শে বিভিন্ন ধরনের ছত্রাকনাশক ও কীটনাশক স্প্রে অব্যাহত রয়েছে। নাসিম মাহমুদ জানান, কয়েক বছরের বাজার ব্যবস’াপনার কথা ভেবে এখন থেকেই উদ্বিগ্ন। মৌসুমে ফলন ভালো হলেও স’ানীয় প্রশাসন আম পাড়ার সময়সীমা  বেঁধে দেয়ায় ৰতিগ্রসৱ হন তারা। এ অবস’ায় আম পাড়ার সময়সীমা বেঁধে না দেয়ার দাবিও জানান বাগান মালিকরা।
জেলা কৃষি সমপ্রসারণ অধিদপ্তর উপ-পরিচালক মঞ্জুরুল হুদা বলেন, প্রচ- খরায় আমের কিছুটা ৰতি হলেও বিরূপ আবহাওয়া থেকে আমের ফলন রৰার্থে, গাছের গোড়ায় পানি ও বালাই ব্যবস’াপনার নানা পরামর্শ ও সচেতনতায় কৃষি বিভাগের পৰ থেকে আমচাষিদের মাঝে বিতরণ করা হচ্ছে লিফলেট । চলছে আমচাষিদের প্রশিৰণ। কৃষি-বিদরা বলছেন, সামনে আবহাওয়া-জনিত বড় কোন ধরনের বিপর্যয় না ঘটলে এবারও আমের বাম্পার ফলন হবে।
জেলা প্রশাসক মাহমুদুল হাসান বলেন, ভোক্তাদের কাছে বিষমুক্ত ও পরিপক্ক আম উপহার দিতে সব ধরনের প্রসৱুতি নেয়া হচ্ছে। সেৰেত্রে সময়সীমা বেঁধে দেয়া হলেও আমচাষিরা যাতে ৰতিগ্রসৱ না হয় সে বিষয়টিও বিবেচনায় রাখা হবে।
গত বছর জেলায় আমের উৎপাদন হয়েছিল ২ লাখ ৪০ হাজার মেট্রিক টন। এ বছর ২৬ হাজার ১ শ ৫০ হেক্টর জমিতে আমের চাষ হয়েছে। বৈরী আবহাওয়ার পরও উৎপাদন গত বছরের মতই ভাল হবে বলে কৃষি বিভাগ আশাবাদি।

Leave a Reply