শেখ হাসিনা দেশ বিক্রি করে না, রৰা করে

১২/০৪/২০১৭ ১:০৭ পূর্বাহ্ণ০ commentsViews: 8

সোনালী ডেস্ক: ‘শেখ হাসিনা দেশ বিক্রি করে না, দেশ রৰা করে’ প্রগাঢ় আত্মবিশ্বাস আর দৃঢ়তার সাথে নিজের সম্পর্কে এই উক্তিটি করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, আমি ভারতের কাছে কোনও দেনা-পা্‌ওনার জন্য যাইনি, স্রেফ বন্ধুত্ব চাইতে গিয়েছিলাম, বন্ধুত্ব পেয়েছি। দেশের মানুষের জন্য সম্মান বয়ে আনতে পেরেছি এটাই এই সফরের সবচেয়ে বড় অর্জন।
গত ৭ থেকে ১০ এপ্রিল চার দিনের ভারত সফর শেষে তার একদিন পরেই মঙ্গলবার (১১ এপ্রিল) গণভবনে সংবাদ সম্মেলন ডেকে সাংবাদিকদের সে সফর সম্পর্কে বিস্তারিত জানালেন শেখ হাসিনা। তখন সফর থেকে তার অর্জনের নানা দিক তুলে ধরেন। সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরেও উঠে আসে আরও নানা প্রসঙ্গ। এই সফরে শেখ হাসিনা ভারতের কাছে দেশকে বিক্রি করে দিয়েছেন, রাজনৈতিক দল বিএনপিসহ বিভিন্ন মহলের এমন সমালোচনার প্রসঙ্গ তুলে একটি প্রশ্ন করা হলে শেখ হাসিনা বলেন, একটা কথা সবসময় মনে রাখবেন, শেখ হাসিনা কখনো দেশ বিক্রি করবে না, দেশকে রৰা করবে।’
‘যারা এ ধরনের কথা বলেন, তারা বলবেনই তাদের চরিত্র আমার জানা আছে’ নিন্দুকদের উদ্দেশ্যে বলেন প্রধানমন্ত্রী। ভারতের সঙ্গে সামরিক সহায়াতা চুক্তি নিয়েই সমালোচনা বেশি হচ্ছে। এর আওতায় ভারত বাংলাদেশকে ৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দিচ্ছে।
বিষয়টি স্পষ্ট করতে শেখ হাসিনা বলেন, ভারত যে সহায়তা দিচ্ছে তা মাত্র ১% সুদে ২০ বছরে পরিশোধযোগ্য নমনীয় ঋণ। এই অর্থ দিয়ে কি করা হবে সে স্বাধীনতা পুরোপুরি বাংলাদেশের। যেকোনও দেশ থেকে সামরিক অস্ত্র সরঞ্জাম বাংলাদেশ কিনতে পারবে। এছাড়া এই চুক্তিরা আওতায় দুই দেশের মধ্যে জ্ঞান ও দৰতার বিনিময় হবে। শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের সশস্ত্রবাহিনী অত্যন্ত দৰ, তবে জ্ঞানার্জনের কোনও শেষ নেই। তাই প্রশিৰণ নেওয়া হবে। সফর বিনিময় হবে, ইত্যাদি।
তিনি বলেন, আগেই জানতাম এমন একটি ্‌প্রশ্ন আসবে তাই এই চুক্তির বিস্তারিত নিয়ে এসেছি। এখানে সবই রয়েছে। আমার ্‌ওপর আস’া রাখুন। ভারত আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধে সহায়তা করেছে, ভারতের সেনাবাহিনীর কাছ থেকে আমাদের সেনাবাহিনীর শেখার ও প্রশিৰণের অনেক কিছু রয়েছে। এই সহায়তা কাঠামোগত। এতে থাকবে শিৰা সফর, প্রশিৰক বিনিময়, চিকিৎসা সফর বিনিময়, টহল অনুশীলণ ইত্যাদি। প্রতিরৰা মন্ত্রণালয় তার নিজেরই দায়িত্বে এমন কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে শেখ হাসিনা বলেন, যতৰণ আমি বেঁচে আছি, ততৰণ বাংলাদেশের স্বার্থ বিরোধী কিছু হবে না, এটা মনে রাখবেন। সামরিক সহায়তা চুক্তির বিষয়ে আরও বিস্তারিত জানাতে গিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, এমন চুক্তি এখন বিশ্বের অন্তত ১৩টি দেশের সঙ্গে রয়েছে বাংলাদেশের । আর ছয়টি দেশের সঙ্গে প্রতিরৰা চুক্তিও রয়েছে।
চীনের সঙ্গে এমন চুক্তি রয়েছে জানিয়ে শেখ হাসিনা কিছুটা নেতিবাচক ইঙ্গিতে পাল্টা সাংবাদিকদের কাছেই প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন বিএনপির আমলে হওয়া সে চুক্তিতে কি রয়েছে আপনারা জানেন? ভারতের সাথে চুক্তিতে সহজ শর্তে অতি নমনীয় ঋণ নেওয়া হয়েছে যা দিয়ে বাংলাদেশ তার প্রয়োজন ও নিজের ইচ্ছাতেই যে কোনও দেশ থেকে সামরিক সরঞ্জাম কিনতে পারবে। সে স্বাধীনতা বাংলাদেশেরই থাকবে, এতে দেশ বিক্রি হয়ে যায় না। এমনকি পাকিস্তানের কাছ থেকেও বাংলাদেশ সামরিক সরঞ্জাম কেনে বলে এই সংবাদ সম্মেলনে জানান শেখ হাসিনা।

Leave a Reply