পিংকু হোস্টেলে ভাঙচুর পাঁচ শিবিরকর্মী গ্রেপ্তার

০৮/০৪/২০১৭ ১:০৬ পূর্বাহ্ণ০ commentsViews: 36

স্টাফ রিপোর্টার: ডাইনিং টেবিলে বসে আগে খাওয়াকে কেন্দ্র করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজে (রামেক) ছাত্রলীগ ও ছাত্রশিবিরের মধ্যে গোলাগুলি ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার পর পাঁচ শিৰার্র্থীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তারা সবাই শিবিরের কর্মী বলে জানিয়েছে পুলিশ।
গ্রেপ্তার শিবিরকর্মীরা হলেন, ফয়সাল রাহাত (২৪), মিজানুর রহমান (২২), গোলাম রাব্বী (২২), হাবিবুর রহমান (২৩) ও আবু জাফর (২৪)। এদের মধ্যে হাবিবুর ও জাফর পুলিশি হেফাজতে রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। সংঘর্ষের সময় তারা আহত হন।
নগরীর রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমান উলৱাহ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বৃহস্পতিবার রাতে সংঘর্ষের পর অভিযান চালিয়ে এই পাঁচ শিবিরকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়। তবে কোনো অস্ত্র উদ্ধার করা যায়নি। সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
এর আগে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ডাইনিং টেবিলে আগে বসে খাওয়াকে কেন্দ্র করে রামেকের শহীদ জামিল আক্তার রতন ইন্টার্নি হোস্টেলে ছাত্রলীগ কর্মী শরিফুল ইসলাম শাওন এবং শিবিরকর্মী রাকিবুল ইসলামের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি হয়। এক পর্যায়ে দুই পৰের মধ্যে সংঘর্ষ শুর্ব হয়।
পরে পুরো ক্যাম্পাসে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। দুই পৰের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার সময় অন্তত ১০ রাউন্ড গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। ছাত্রলীগ কর্মীরা পিংকু হোস্টেলে গিয়েও ব্যাপক ভাঙচুর চালান। শিবির সন্দেহে তারা বেশ কয়েকজন শিৰার্থীকে মারধরও করেন। পরে রাত ১টার দিকে পুলিশ গিয়ে পরিসি’তি নিয়ন্ত্রণ করে।
এর আগে সংঘর্ষে শিবিরকর্মী হাবিবুর রহমান ও আবু জাফর আহত হন। রাত ১২টার দিকে তাদের রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর রাত দেড়টার দিকে শহীদ জামিল আক্তার রতন হোস্টেলটিতে তলৱাশি চালায় পুলিশ। এ সময় সেখান থেকে শিবিরকর্মী ফয়সাল, মিজানুর ও রাব্বীকে আটক করা হয়।

Leave a Reply