দায়িত্ব নিয়েই মশক নিধনের নির্দেশ দিলেন মেয়র বুলবুল

০৬/০৪/২০১৭ ১:০৬ পূর্বাহ্ণ০ commentsViews: 31

স্টাফ রিপোর্টার: ঘরের ভেতর কিংবা বাইরে। শপিং মলে অথবা চায়ের দোকানে। বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে অবসরে বসে থাকা বা অফিসে ব্যস্ত সময় পার করা। মশার উৎপাতে কোথাও শান্তি নেই। মশার অত্যাচারে হাপিয়ে উঠেছে নগরবাসী। তাই তো নগরবাসীর শান্তির কথা মাথায় রেখে চেয়ারে বসে মশা নিধনকেই সবচেয়ে বেশি গুর্বত্ব দিলেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল।
গতকাল বুধবার দায়িত্ব গ্রহণের পরই সিটি করপোরেশনের বিভাগীয় প্রধানদের নিয়ে আলোচনায় বসেন মেয়র বুলবুল। এ সময় সবচেয়ে গুর্বত্ব পায় মশা নিধনের বিষয়টি। মেয়র নির্দেশ দেন, আগামী ২১ দিনের মধ্যে মশা নিধন কার্যক্রম পরিচালনা করে মশার অত্যাচারের মাত্রা সহনশীল পর্যায়ে নামিয়ে আনতে হবে।
এদিকে দীর্ঘদিন ধরে দায়িত্বপ্রাপ্ত মেয়র থাকায় ভেঙে পড়েছিল সিটি করপোরেশনের মশক নিধন অভিযান। গত ১৫ ফেব্র্বয়ারি থেকে যে মশক নিধন অভিযান শুর্ব করেছিল রাজশাহী সিটি করপোরেশন। তবে সেটি নামমাত্র। নগরবাসী বলছেন, কয়েল, অ্যারোসল কিংবা অন্য কোনো উপায়েও মশার যন্ত্রণা থেকে রেহাই মিলছে না।
বিশেষ করে সন্ধ্যার পর মশার কামড়ে ছাত্রছাত্রীদের লেখাপড়া করতে সমস্যা হচ্ছে। মশার কামড়ে ঘরে বসে থেকে পড়া দায় হয়ে পড়ছে তাদের। আবার অফিস-আদালতেও মশার অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠছেন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।
এ বিষয়ে মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, সিটি করপোরেশন সেবামূলক প্রতিষ্ঠান। সাধারণ মানুষের অর্থে করপোরেশন চলে। এখানে বসবাস করা সাধারণ মানুষের সুখ-দুঃখের কথা সবার আগে চিন্তা করতে হবে। আমি যতো দিন মেয়র পদে আছি ততোদিন মানুষের সেবা করে যাবো।
তিনি আরো বলেন, আগামী ২১ দিনের মধ্যে মশা নিধন কার্যক্রম পরিচালিত করে পরিসি’তি স্বাভাবিক পর্যায়ে নামিয়ে আনতে পারবো বলে মনে করি। নগরবাসী যাতে শান্তিতে বসবাস করতে পারে সে বিষয়ে সর্বোচ্চ গুর্বত্ব দেয়া হবে।
প্রসঙ্গত, বরখাস্ত হওয়ার দীর্ঘ ২৩ মাস পর গত রোববার দুপুরে রাসিক কার্যালয়ে গিয়ে দায়িত্ব নেন বুলবুল। এর পর পরই তাকে সাময়িক বরখাস্তের একটি আদেশ আসে সিটি করপোরেশনের ফ্যাক্সে।
এরপর মঙ্গলবার সাময়িক বরখাস্তের আদেশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট করেন বুলবুল। রিট আবেদনের শুনানি শেষে বুলবুলের সাময়িক বরখাস্তের আদেশ স’গিত করেন হাইকোর্ট। গতকাল আবার মেয়রের চেয়ারে বসেন বুলবুল।

Leave a Reply