আইএসের শেষ ঘাঁটি পশ্চিম মসুলে অভিযানে ইরাকি বাহিনী

২০/০২/২০১৭ ১:০২ পূর্বাহ্ণ০ commentsViews: 31

এফএনএস আনৱর্জাতিক ডেস্ক: ইরাকে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) শেষ শক্ত ঘাঁটি পশ্চিম মসুল জঙ্গিমুক্ত করতে অভিযান শুরম্ন করেছে ইরাকি বাহিনী। বিবিসি জানিয়েছে, রোববার বিমান হামলা ও কামানের গোলার ছত্রছায়ায় শত শত ইরাকি সামরিক যান মরম্নভূমির মধ্য দিয়ে পশ্চিম মসুলের জঙ্গি অব-স’ানগুলোর দিকে এগিয়ে যায়। তারা পশ্চিম মসুল ঘিরে ফেলতে শুরম্ন করেছে। অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন আনৱর্জাতিক জোট বাহিনীর বিমানগুলো আইএসের লক্ষ্যস’লগুলোতে বিমান হামলা শুরম্ন করেছে। ইরাকের প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল আবাদি আনুষ্ঠানিকভাবে এই অভিযান শুরম্নর ঘোষণা দিয়েছেন।  টেলিভিশনে সমপ্রচারিত এক ভাষণে তিনি বলেছেন, “অভিযানের নতুন পর্ব শুরম্ন করার ঘোষণা দিচ্ছি আমি, মসুলের পশ্চিম অংশ মুক্ত করতে নিনেভে আসছি আমরা। “দায়েশের (আইএস) সন্ত্রাস থেকে নাগরিকদের মুক্ত করতে শুরম্ন করেছে আমাদের বাহিনীগুলো।” এর আগে সরকারি বাহিনীর আসন্ন অভিযানের বিষয়ে পশ্চিম মসুলের বেসামরিক বাসিন্দা-দের সতর্ক করতে বিমান থেকে হাজার হাজার লিফলেট ছাড়া হয়। শহরটির এই অংশে ছয় লাখ ৫০ হাজার বাসিন্দা রয়েছে বলে প্রকাশিত বিভিন্ন প্রতিবেদন সূত্রে জানা গেছে। দুপক্ষের লড়াইয়ের মাঝে শহরে আটকা পড়তে যাওয়া বেসামরিকদের কথা ভেবে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ।
ইরাকে আইএসের শেষ শক্ত ঘাঁটি ছিল মসুল। মাঝ বরাবার বয়ে যাওয়া ইউফ্রেতিস নদী শহরটিকে পূর্ব ও পশ্চিম অংশে বিভক্ত করে রেখেছে। সরকারি বাহিনীগুলো গত মাসে পূর্ব মসুল পুনরম্নদ্ধার করেছে। সরকারি বাহিনীর অভিযানের মুখে টিকতে না পেরে আইএসের জঙ্গিরা পশ্চিম মসুলে যেয়ে অবস’ান নেয়। সেখানে আগে থেকেই জঙ্গিেেগাষ্ঠীটির শক্ত অবস’ান ছিল, পূর্ব পাশের জঙ্গিরা যোগ দেওয়ায় তাদের শক্তি আরও সংহত হয়েছে। তাই পশ্চিম মসুল মুক্ত করতে ইরাকি বাহিনীগুলোকে কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। পশ্চিম মসুলের প্যাচানো সরম্ন গলিগুলোও এ ক্ষেত্রে বড় ধরনের প্রতিবন্ধকতা হয়ে দেখা দিতে পারে বলে মনে করছেন সমর বিশেষজ্ঞরা। পূর্বাংশ থেকে পশ্চিম মসুল কিছুটা ছোট হলেও এখানে লোকসংখ্যার ঘনত্ব বেশি। এই অংশের বেশ কয়েকটি এলাকার বাসিন্দারা আইএসপনি’। অভিযানরত বাহিনীগুলোকে এ বিষয়ে সতর্ক করেছেন বিশেষজ্ঞরা। দুই বছরেরও বেশি সময় আগে সিরিয়া ও ইরাকে বিশাল অংশ দখল করে নেওয়ার সময় মসুলও দখল করে নেয় আইএস জঙ্গিরা। এই শহর থেকেই গোষ্ঠীটির প্রধান আবু বকর আল বাগদাদি তথাকথিত ইসলামিক স্টেট ‘রাষ্ট্র’ প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দিয়েছিলেন।

Leave a Reply